ডেস্ক: বেতন বৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে বুধবার সকাল থেকে দেশজুড়ে ব্যাঙ্ক ধর্মঘটে নামল ব্যাঙ্ক কর্মচারিরা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার ও বৃহস্পতিবার টানা দুই দিন চলবে এই ধর্মঘট। ধর্মঘটের জেরে বন্ধ থাকবে ব্যাঙ্কের প্রায় ৯৮০০ শাখা একইসঙ্গে দেশজুড়ে বন্ধ থাকবে প্রায় ২১ হাজার এটিএম। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনার জেরে চরম বিপাকে পড়বেন সাধারন মানুষ।

জানা গেছে, মাত্র দুই শতাংশ বেতন বৃদ্ধিতে খুশি নন ব্যাঙ্ককর্মীরা। একইসঙ্গে পরিকাঠামো সহ নানান সমস্যায় সমাধানের দাবি নিয়ে ইউনাইটেড ফোরম অফ ব্যাঙ্ক ইউনিয়নের তরফে এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। এদিকে এই ধর্মঘটের প্রভাব এটিএমগুলির উপর পড়বে বলে আশঙ্কা করছে বিভিন্ন মহল। যদিও ব্যাঙ্ক অ্যাসোসিয়েসানের তরফে দাবি করা হয়েছে, ধর্মঘটতের আগেই টাকা ভরে দেওয়া হয়েছে এটিএমগুলিতে। কিন্তু মাসের শেষ সময়ে ডাকা এই ধর্মঘটে টাকার সঙ্কট প্রকট হবে বলেই মনে করা হচ্ছে। এদিকে জানা গিয়েছে, দু’দিনের ব্যাপী এই ধর্মঘটের জন্য দু’দিনের বেতন কাটা হবে ব্যাঙ্ককর্মীদের।

ইউনাইটেড ফোরম অফ ব্যাঙ্ক ইউনিয়নের ছাতার তলায় রয়েছে ব্যাঙ্কের কর্মচারীদের নটি সংগঠন। তাদের ডাকা রাষ্ট্রায়াত্ব ব্যাঙ্কগুলির বনধের প্রভাব পড়েছে বেসরকারি এইজডিএফসির মতো ব্যাঙ্কগুলিতে। এদিকে ব্যাঙ্ককর্মীদের দাবি, ২ শতাংশ নয়, বেতন বৃদ্ধি করতে হবে ১৪ থেকে ১৫ শতাংশ।