নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: সকালে প্রতিবেশীরা শুনতে পায় চিৎকার। ছুটে আসে ঘটনাস্থলে এবং রক্তাক্ত অবস্থায় পাওয়া যায় মিঠু দাসকে। ঘটনাটি ঘটেছে হাবড়ার পল্লীবার্তা রোড এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মিঠু দাস নামে ওই মহিলা তার দাদার সঙ্গে থাকত। কিছুদিন আগেই মিঠুর বিয়ে হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, একাধিক অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে সে। মিঠু আয়ার কাজ করত বলে জানা গিয়েছে।

রবিবার সকালেই প্রতিবেশীরা আচমকাই তার চিৎকার শুনতে পায়। বাঁচাও বাঁচাও বলে বাইরে বেরিয়ে আসে সে। রক্তাক্ত অবস্থায় প্রতিবেশীরা তাকে দেখতে পায়। এরপর মিঠুকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে হাবড়া হাসপাতাল থেকে আরজিকর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

 

এই ঘটনায় হাবড়া থানার পুলিশ মিঠুর বাড়িতে যায়। তল্লাশির সময় মিঠুর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তার পকেট থেকে একটি আই কার্ড উদ্ধার করেছে তারা। মৃত ব্যক্তির নাম সুখেন ধর। খড়দা থানার রুইয়া এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান সুখেন মিঠুকে খুন করার জন্য তার বাড়িতে এসেছিল। এরপর ছুরি চালিয়ে মিঠুকে খুন চেষ্টা করা হয়। কোনও ক্রমে মিঠু বাইরে বেরিয়ে আসে। এরপর নিজের গলায় ছুরি চালিয়ে সে আত্মহত্যা করে। এই ঘটনায় গোটা এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here