kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: হোয়াটসঅ্যাপে পেগাসাস স্পাইওয়ার নামক সফটওয়ারের ইনস্টল করে তার মাধ্যমে হ্যাকাররা ফোনে আড়ি পাততে চেষ্টা করছে রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের ফোনে৷ সম্প্রতি এমনই আশঙ্কার কথা জানিয়েছিল হোয়াটসঅ্যাপ৷ তাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, তার ফোনও ট্যাপ করা হচ্ছে৷ যদিও চলতি বছরই লোকসভা ভোটের আগেও নিজের ফোন ট্যাপিংয়ের দাবি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ অভিযোগের তীর ছিল মোদী সরকারের দিকেই৷ এবার এপ্রসঙ্গে পাল্টা মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করতে আসরে নামলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়৷ ঘুরিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ অফিসার ফোন-ট্যাপিংয়ের সঙ্গে যুক্ত বলে দাবি করলেন বাবুল সুপ্রিয়৷ সঙ্গে তিনি বলেন, ‘যা ঘটনা ঘটে, সবেতেই সব থেকে আগে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী’৷

কেন্দ্রীয় বাবুল সুপ্রিয় বলেন, আর্থিক প্রতারণাই হোক কিংবা হালের ফোন ট্যাপিং, সবেতেই তিনি(মমতা) মনে করেন, তাঁকেই টার্গেট করা হচ্ছে। বাবুলের প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রী কেন এরকম করেন, তা তাঁর মাথায় আসছে না৷ উল্টে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করেই তিনি আরও বলেন যে, মুখ্যমন্ত্রী ঘনিষ্ঠ পুলিশ অফিসার ইজরায়েল গিয়েছিলেন। তিনি সেখান থেকে সফটঅয়্যার নিয়ে এসেছেন। তারপর থেকে রাজ্যের রাজনীতিবিদদের ফোন ট্যাপ করা হচ্ছিল বলেও অভিযোগ করেছেন বাবুল। এদিকে হোয়াটসঅ্যাপ কল নিয়ে বিদ্রুপ করে বাবুলের কথা,’দিদির ক্যাবিনেট মন্ত্রীরা ভয় পান ফোনে কথা বলতে তাই তারা হোয়াটস অ্যাপ কল করেন’৷

এখানেই ক্ষান্ত হননি বাবুল৷ পশ্চিমবঙ্গের আইন- শৃঙ্খলা নিয়েও একরাশ ক্ষোভ উগড়ে দেন তিনি ৷ বলেন, নবান্ন থেকে শুধু আইপিএসদের পোস্টিং নয়, সাব ইনস্পেক্টরদের পোস্টিং-ও হয়। প্রসঙ্গত, মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে একাধিকবার তোপ দাগতে দেখা গেছে আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে৷ তবে সম্প্রতি সেই ক্ষোভের আগুনে আরও ঘি ঢেলেছে যাদবপুরকাণ্ড৷ যাদবপুরে গিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর ছাত্র বিক্ষোভের মুখে পড়ার পর রাজ্য পুলিশের ভূমিকা নিয়ে কম প্রশ্ন তোলেননি বাবুল৷ এখন সেই রেশ ধরে রেখেই প্রায়শই মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করতে পা বাড়িয়েই রাখেন বাবুল সুপ্রিয়, মত রাজনৈতিকদের একাংশের৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here