kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: কয়েক মাস ধরে চলতে থাকা জল্পনার অবসান হল আজ। হুগলির বৈদ্যবাটিতে বিজেপির সভায় যোগ দিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র তথা পাণ্ডবেশ্বরের তৃণমূল বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি। কয়েক মাস আগে তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়া প্রায় পাকা হয়ে গিয়েছিল। সেই সময় তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়া আটকান আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় ও রাজ্য বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। মূলত, এই দুই নেতার আপত্তিতে তখন বিজেপিতে যোগ দেওয়া হয়নি জিতেন্দ্র তিওয়ারি। এরপর জিতেন্দ্র তিওয়ারি রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে বৈঠক করে সমস্ত তিক্ততা মিটে যাওয়ার কথা ঘোষণা করেন। তারপর গঙ্গা দিয়ে বয়ে গিয়েছে অনেক জল। সেই জিতেন্দ্র তিওয়ারি এবার পাকাপাকি ছাড়লেন তৃণমূল। যোগ দিলেন বিজেপিতে।

​কয়েক মাস আগে তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন যে ক’জন বিজেপি নেতা, তার মধ্যে অন্যতম হলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। মনে করা হয়, বাবুলের আপত্তিতেই তখন বিজেপিতে যোগ দেওয়া হয়ে ওঠেনি জিতেন্দ্র তিওয়ারির। প্রকাশ্যে এমন আপত্তি জানানোর বাবুলকে দলের তরফে শো-কজ করা হয়েছিল। তারপর জিতেন্দ্র তিওয়ারি ইস্যুতে বাবুল সুপ্রিয় আর খুব একটা মুখ খোলেননি।

​আজ জিতেন্দ্র তিওয়ারি বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর তাঁকে স্বাগত জানিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেছেন, ‘উনি তো সাহস করে ফিরহাদ হাকিমকে চিঠিটা লিখেছিলেন। বলেছিলেন রাজনৈতিক স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আসানসোলকে স্মার্ট সিটি করতে দেননি। কেউ যদি নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে উন্নয়নের কাজে শরিক হতে চান, তিনি বিজেপিতে এলে স্বাগত। আমার দল শক্তিশালী হবে।‘

​উল্লেখ্য, আসানসোলে বিজেপির সঙ্গে বাবুলের ‘লড়াই’ সর্বজনবিদিত। দু’বারের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়কে বহুবার আসানসোলের মেয়রের বিরুদ্ধে ‘সম্মুখ সমরে’ নামতে দেখা গিয়েছে। দুই পক্ষ কেউ কারও জন্য জমি ছাড়তে নারাজ ছিল। আর আজ একে অপরের ‘শত্রু’ এখন ‘মিত্র’ হয়ে গিয়েছে। সমস্ত তিক্ততা ভুলে তাই বাবুল সুপ্রিয় স্বাগত জানিয়েছেন জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে।

জিতেন্দ্র তেওয়ারির দলত্যাগ প্রসঙ্গে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ‘অনেকেই তো যাচ্ছেন। আবার অনেকে বিজেপি থেকে আমাদের দলেও আসছেন। কেউ চলে গেলে কিছু যাবে-আসবে না। তবে যাঁরা যাচ্ছেন, পরে তাঁদের আঙুল চুষতে হবে।‘

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here