মহানগর নিউজ ডেস্ক : একরত্তি শিশুর তিন তিনটি পুরুষাঙ্গ! ছেলেকে নিয়ে কী করবেন ভেবে পাচ্ছেন না ইরাকি দম্পতি। চিকিতসকদের মতে, বিরলের মধ্যে বিরলতম ঘটনা এটি। প্রধান পুরুষাঙ্গটি রেখে বাকি দুই অঙ্গচ্ছেদ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিকিতসকরা।

মাস তিনেক আগে ইরাকি এক দম্পতির কোল আলো করে আসে পুত্রসন্তান। প্রথম সন্তান পুত্র হওয়ায় উচ্ছ্বসিত ওই দম্পতি। মাস তিনেক পর্যন্ত সব ঠিকঠাক ছিল। সমস্যা দেখা দিল কিছু দিন আগে। প্রধান পুরুষাঙ্গের পাশ দিয়ে ক্রমেই বেরিয়ে আসছে আরও একটি পুরুষাঙ্গ। পুরুষাঙ্গ বেড়ে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে শিশুটির অন্ডকোষও ফুলতে শুরু করে। ঘটনায় হকচকিয়ে যান শিশুটির পরিবার। বিরল ঘটনা দেখতে শিশুটির বাড়িতে ভিড় করেন পড়শিরা। শিশুটিকে সুস্থ করে তুলতে শুরু হয় ঝাড়ফুঁক, তুকতাক। তার পরেও পুরুষাঙ্গের বৃদ্ধি বন্ধ হয়নি। এর পরেই ইরাকি ওই দম্পতি যান চিকিতসকের কাছে।

শিশুটিকে পরীক্ষা করে তাঁরা দেখেন প্রধান পুরুষাঙ্গের পাশ দিয়ে লিঙ্গাকৃতি যা বের হচ্ছে, সেটিও লিঙ্গ। অন্ডকোষের মধ্যে ক্রমেই বাড়ছে আরও একটি পুরুষাঙ্গ। ঘটনায় চক্ষু চড়কগাছ হওয়ার জোগাড় চিকতসকদের। শুরু হয় শিশুটির নিবিড় পর্যবেক্ষণ। দেখা যায়, প্রধান লিঙ্গের সঙ্গে ইউরিনারি ব্লাডারের যোগ থাকলেও, বাকি দুটি লিঙ্গের সঙ্গে মূত্রথলির কোনও সম্পর্কই নেই। সেগুলি বেড়ে উঠছে আপনা থেকেই। যা বিরলের মধ্যে বিরলতম বলেই অভিমত চিকিতসকদের।

শিশুটি গর্ভে থাকাকালীন তার মা কোনও ওষুধ খেয়েছিলেন। তারই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় এমন হতে পারে বলে অনুমান চিকিতসকদের। আজব এই ঘটনাটি প্রকাশিত হয়েছে দ্য ইন্টারন্যাশনেল জার্নাল অফ সার্জারি কেসে। লিখেছেন ইরাকেরই দুই চিকিতসক শাকির সালিম জাবালি ও আয়াদ আহমেদ মহম্মদ। নাম দিয়েছেন ত্রিফাল্লিয়া। অস্ত্রোপচারের সাহায্যে শিশুটির বাড়তি অঙ্গ দুটি কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিকতসকরা।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here