garg chaterji bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দলের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছিল আগে থেকেই৷ শেষপর্যন্ত ভেঙে গেল বাংলা জাতীয়তাবাদী সংগঠন বাংলা পক্ষ৷ আত্মপ্রকাশের মাত্র দুবছরের মধ্যেই ভেঙে গেল এই দলটি৷ জাতীয় বাংলা সম্মেলন নামে আত্মপ্রকাশ করল নতুন একটি সংগঠন৷ নয়া সংগঠনের নেতাদের অভিযোগ, শুরুতে সংগঠনের যে রাজনৈতিক মতাদর্শ ছিল তা বদলে গিয়ে ক্রমশ বিদ্বেষের রাজনীতিতে পরিণত হয়েছে। বাংলা পক্ষ কার্যত হিন্দুত্ববাদী বাঙালির হয়ে প্রচার চালাচ্ছে। তবে বাংলা পক্ষের প্রতিষ্ঠাতা গর্গ চট্টোপাধ্যায় একথা মানতে চাননি৷ তাঁর দাবি, বাংলা পক্ষ থেকে কয়েকজনকে বহিষ্কৃত করা হয়েছিল তারাই এই নতুন সংগঠন তৈরি করেছেন। এর সঙ্গে বাংলা পক্ষে ভেঙে যাওয়ার কোনও সম্পর্ক নেই৷

মহানগরকে একই কথা জানিয়ছেন বাংলা পক্ষের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা কৌশিক মাইতিও৷ তিনি জানান, “গত ২৬ অক্টোবর দল বেশ কয়েকজন সদস্যকে সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের কারণে বহিষ্কার করা হয়েছিল৷ তারা নতুন সংগঠন খুলেছে৷ এর সঙ্গে বাংলা পক্ষ ভেঙে যাওয়া বা বাংলা পক্ষে ভাঙনের কোনও যোগাযোগ নেই৷ যারা নতুন সংগঠন তৈরি করেছেন তাদের জন্য শুভেচ্ছা রইল”৷

এদিকে জাতীয় বাংলা সম্মেলন নামে নতুন সংগঠনের কার্যকারী সভাপতি অনির্বাণ বন্দ্যোপাধ্যায় কিন্তু কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বাংলা পক্ষকে৷ তাঁর অভিযোগ, বাংলা পক্ষের একাংশই বাঙালির অধিকার অর্জনের তুলনায় জাতি বিদ্বেষী এবং জাতিবাদী কাজকর্মে জড়িয়ে পড়ছে। একই সঙ্গে তাঁরা হিন্দুত্ববাদী বাঙালির প্রচারে বেশি জোর দিচ্ছে। তবে নতুন এই সংগঠনটি বিদ্বেষ ছেড়ে শুধু বাঙালির অধিকারের জন্যই লড়াই করবেন।

ভাঙনের প্রেক্ষাপট তৈরি হচ্ছিল অনেক আগে থেকেই। নতুন সংগঠনের সদস্যদের মতে, একসঙ্গে পথ চলা শুরু করলেও, যত দিন যাচ্ছিল বাংলা পক্ষের কাজকর্মের সঙ্গে তাঁদের মতাদর্শগত বিভেদ আরও স্পষ্ট হয়ে উঠছিল। শেষ পর্যন্ত আশঙ্কা সত্যি হয়৷ ফাটল ধরে বাংলা পক্ষে। বাংলা পক্ষের বিরুদ্ধে অসহিষ্ণুতার অভিযোগের তালিকা ক্রমশ লম্বা হচ্ছে৷ যে দল বাঙালি অধিকার জন্য লড়াই করতে ময়দানে নেমেছিল৷ তাদের বিরুদ্ধে এখন অভিযোগ উঠছে উগ্র জাতীবাদের৷ কিন্তু প্রশ্ন উঠছে এই উগ্রতাকে কী সমর্থন করবে বাঙালি? নতুন এই সংগঠনটির অবশ্য দাবি, বাঙালি আবেগকে সামনে রেখে বাংলা পক্ষ নিজের যে পরিচয় তৈরি করেছে তা ছেড়ে বেরিয়ে বাংলার বাইরের মানুষের অধিকার আন্দোলনেও নামবে এই নতুন সংগঠনটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here