রাতের আগেই কাত বাংলাদেশ

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: না, রাত হতে অনেক দেরী। তার আগে গোধূলি, সন্ধ্যা আছে। কিন্তু মিলের খাতিরে লিখতেই হল রাত। সংবাদটির শিরোনাম ‘মিলের’ দোষে অর্ধ-সত্য হলেও বাংলাদেশ যে একেবারে কুপোকাত তা একেবারে ১০০ শতাংশ। পিঙ্ক বলের ধাঁধা আর ভারতীয় পেসারদের অগ্নিবাণ, দুইয়ের ধাক্কায় চোখে সর্ষেফুল বাংলাদেশের। দুপুরের খাবারের বিরতিতেই সাজঘরে অর্ধেকের বেশি বাংলাদেশী ব্যাটসম্যান।

পিঙ্ক টেস্টকে মানুষের মনে গেথে দিতে আয়োজনের খুঁত রাখেননি সৌরভ গাঙ্গুলি। টেস্ট শুরুর আগে তাঁর মধ্যে একেবারে বরকর্তার ব্যস্ততা। শচীন, ভিভিএস, গাভাস্কার থেকে শুরু করে কে নেই। অন্যদিকে, আছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন- এক ঘর ভিভিআইপিদের সামনে মুশফিকুরদের একেবারে ঘরে আমন্ত্রণ করে এনে ‘অপমান’ করল ভারত।

এদিন টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। প্রথম পাঁচ ওভার ভারতীয় পেসারদের সামলে নিলেও সপ্তম ওভার থেকে শুরু হয় বাংলাদেশের ধস। ওপেনার ইমরুল কায়েসকে (৪) ফিরিয়ে প্রথম ধাক্কাটা দেন ইশান্ত শর্মা। এরপর পরপর মমিনুল হক (০) ও মহম্মদ মিঠুনকে (০) ফেরান উমেশ যাদব। স্লিপে মমিনুলের অসাধারণ ক্যাচ ধরেন রোহিত শর্মা।

এরপর আসরে নামেন মহম্মদ শামি। এসেই তিনি বোল্ড করে দেন মুশফিকুর রহিমকে (০)। মহমুদ্দুলাহ ও লিটন দাস মিলে কিছুটা ক্ষয়ক্ষতি মেরামতের চেষ্টা করলেও ঋদ্ধির অসাধারণ ক্যাচে মাত্র ৬ রান করেই আউট হয়ে যান মহমুদ্দুলাহ। লিটন দাসের (২৪*) মাথায় আঘাত লাগায় সাজঘরে ফিরতে হয় তাঁকে। লাঞ্চের বিরতিতে বাংলাদেশের মোট রান ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৭৩। তিন উইকেট উমেশের, দুই উইকেট ইশান্তের ও একটি শামির

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here