kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আলিপুরদুয়ার: বাড়ি ফেরার মরিয়া চেষ্টা। অসম থেকে হেঁটে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিলেন বাংলাদেশের এক বাসিন্দা। ওই ব্যক্তিকে কোয়ারেন্টিন সেন্টারে পাঠাল আলিপুরদুয়ার থানার পুলিশ। জানা গেছে, ওই ব্যক্তির নাম ওয়াহিদ আনসারি। বাংলাদেশের গোলকগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা। মঙ্গলবার বৃষ্টিভেজা রাতে হেঁটে আলিপুরদুয়ারে এসে পৌঁছন তিনি। স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে রাস্তা সম্পর্কে জানতে থাকেন তিনি। সেই সময় স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তিকে দেখে সন্দেহ করে। ঘটনার খবর পেয়ে উপস্থিত হন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূলের সভাপতি মৃদুল গোস্বামী। ওই ব্যক্তির সমস্ত রকম তথ্য খতিয়ে দেখেন তিনি।

ওই বাংলাদেশের নাগরিকের সঙ্গে কথোপকথনে জানতে পারা যায়, গত ৪ মার্চ আত্মীয়ের বাড়ি বেড়ানোর উদ্দেশ্যে ভারতে আসেন তিনি। অসমের বরপেটা এলাকায় আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। কিন্তু হঠাৎই লকডাউন ঘোষণা হওয়ায় সেখানে আটকা পড়ে যান ওই বাংলাদেশের বাসিন্দা। লকডাউন ওঠার অপেক্ষা করতে থাকেন। কিন্তু দীর্ঘ ২ মাস পেরিয়ে গেলেও লকডাউন না খোলায় চিন্তার ভাঁজ পড়ে তার মাথায়। তার ভিসার মেয়াদ যে শেষ লগ্নে। ঠিক সেই মুহূর্তে মায়ের অসুস্থতার খবর পান তিনি। অগত্যা হেঁটেই বাড়ি ফেরার জন্য অসমের বরপেটা থেকে রওনা দেন ওই বাংলাদেশের বাসিন্দা। মঙ্গলবার বৃষ্টিভেজা রাতে কোনওরকমে আলিপুরদুয়ার শহরে এসে পৌঁছন। ক্ষুধার্ত ও ক্লান্ত ওই ব্যক্তিকে দেখে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূলের সভাপতি মৃদুল গোস্বামী। এরপর খবর দেওয়া হয় আলিপুরদুয়ার থানার পুলিশকে। আলিপুরদুয়ার থানার পুলিশ এসে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। এরপর বুধবার সেখান থেকেই তাকে আলিপুরদুয়ার ১ নং ব্লকের কৃষক বাজার কোয়ারেন্টিন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন বাংলাদেশের বাসিন্দা ওয়াহিদ আনসারি।

আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূলের সভাপতি মৃদুল গোস্বামী জানান, ওয়াহিদ আনসারি আমাদের দেশের অতিথি। আমাদের দেশে ঘুরতে এসে লকডাউনে আটকা পড়ে যান। তার কাছে সমস্ত বৈধ কাগজপত্র রয়েছে। তাই তাকে সুস্থ ফেরত পাঠানো আমাদের দায়িত্ব এবং কর্তব্য। বর্তমানে তাকে আমরা আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়েছি। সেখান থেকে তাকে আলিপুরদুয়ার ১ নং ব্লক কৃষক বাজার কোয়ারেন্টিন সেন্টারে পাঠানো হবে। সমস্ত পরীক্ষার পর যদি তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে, তারপরই ওয়াহিদ আনসারিকে তার দেশের বাড়ি বাংলাদেশে পাঠানোর সমস্ত রকম ব্যবস্থা করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here