ডেস্ক: ভারতীয় অর্থনীতিতে নোটবন্দির প্রভাব ভাল ছিল না খারাপ সেই নিয়ে তর্ক এবং বিতর্ক উভয়ই চলবে। কিন্তু একথা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, নোটবন্দির নেতিবাচক প্রভাব ধীরে ধীরে দেখা যাচ্ছে রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কগুলিতে। কারণ, গত ৫৫ বছরে এবার ব্যাঙ্কে ‘ডিপোজিট গ্রোথ রেট’ সবচেয়ে নীচে নেমে গিয়েছে। ২০১৮-র মার্চ মাসে শেষ হওয়া আর্থিক বছরে দেশের জনগণ ৬.৭ হারে টাকা জমা করেছেন। যা ১৯৬৩ সালের পর সবচেয়ে কম বলে জানা গিয়েছে।

এই তথ্য জানা গিয়েছে ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রকাশিত খতিয়ান থেকে। ভারতীয় অর্থনীতির মুখপাত্র ‘ইকনোমিক টাইমস’-এর একটি প্রতিবেদন অনুসারে এটি সরাসরি নোটবন্দির প্রভাব হতে পারে। একই সঙ্গে দেখা গিয়েছে বিগত কিছু সময়ে সাধারণ মানুষ মিউচুয়াল ফান্ড এবং অন্যান্য বিকল্প খাতে বেশি বিনয়োগ করেছেন।

২০১৬ সালে নোটবন্দির পর প্রথম পর্যায়ে বিরাট অংকের ডিপোজিট জমা হয়েছিল ব্যাঙ্কে। কিন্তু এরপর ক্রমশ চিত্র টা যেন বদলে গিয়েছে। জানা গিয়েছে, নোটবন্দির পর যে টাকা ব্যাঙ্কের সিস্টেমে এসেছিল তা এখন আর নেই। এর ফলেই টাকা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রেও প্রত্যক্ষভাবে দেখা মিলেছে এর প্রভাব। দিনকয়েক আগেই এটিএমগুলি যে টাকাশূন্য অবস্থায় দেখা গিয়েছিল তার কারণও পরোক্ষে নোটবন্দি বলেই মনে করছেন অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here