ডেস্ক: লোকসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে রামমন্দির বিজেপির চিন্তার ভাঁজ পড়ছে ঠিক ততটাই। ইতিমধ্যেই রামমন্দিরের দাবিতে কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াতে শুরু করেছে দেশের হিন্দু সংগঠনগুলি। বাদ নেই এনডিএর শরিক দলগুলিও। আরএসএস থেকে শুরু করে ভিএইচপি এবং বজরং দল রামমন্দিরের দাবিতে দেশজুড়ে বিক্ষোভের হুঁশিয়ারি দিয়েছে। এরই মাঝে মোদী সরকারের কপালে চিন্তার ভাঁজ বাড়ালেন যোগগুরু রামদেববাবা। এদিন এক সভায় উপস্থিত হয়ে তিনি জানান, কেন্দ্রের উচিৎ আইন এনে রামমন্দির বানানো। মন্দির যদি এখন তৈরি না হয় তাহলে আর কখনই তৈরি হবে না।

বরাবরই যোগ ও পতঞ্জলি নিয়েই ব্যস্ত থাকেন ভারতের যোগগুরু রামদেব বাবা। রাজনীতির ধার মাড়াতেও কখনও দেখা যায়নি তাঁকে। রাম মন্দির নিয়ে এত উত্তেজনার মধ্যেও সেভাবে কখনও মুখ খোলেন তিনি। তবে এদিন শুধু মুখই খুললেন না একেবারে বোমা মারলেনও বলা যায়। এদিন উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে এক সভায় উপস্থিত হয়েছিলেন যোগগুরু রামদেব। সেখানে সাংবাদিকদের সামনে তিনি বলেন, ‘রামমন্দির যদি তৈরি না হয় তাহলে দেশজুড়ে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা তৈরি হবে। দেশজুড়ে তৈরি হবে ভেদাভেদের পরিস্থিতি। এই মন্দির নিয়ে দুই সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে মিটমাটের সময় পেরিয়ে গিয়েছে। এখন যা বাকি রয়েছে তা হল, আইন আনো এবং মন্দির বানাও। আর মন্দির যদি এখন না হয় তাহলে আর কখনই হবে না।’

উল্লেখ্য, অযোধ্যাতে রাম মন্দির তৈরি হবে কিনা তা নিয়ে চলছে জোর অনিশ্চয়তা। একদিকে, রামমন্দির মামলার শুনানি দিনের পর দিন পিছিয়ে চলেছে সুপ্রিমকোর্ট। যাতে মনক্ষুন্ন হিন্দু সংগঠনের নেতারা। ফলস্বরূপ চাপ বেড়েই চলেছে বিজেপি সরকারের উপর। রামমন্দির তৈরিতে অধ্যাদেশের জারি করার পথে হাঁটার উপদেশ দেওয়া হচ্ছে বিজেপি সরকারকে। তবে লোকসভার আগে মেপে পা ফেলছে বিজেপি সরকার। সব মিলিয়ে তৈরি হয়েছে এক জটিল পরিস্থিতি। এরই মাঝে আবার রাম মন্দির তৈরিতে ২৫ হাজার সেনা নিয়োগের পথে হাঁটছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। সঙ্গে আবার এল যোগগুরুর চাপ সবমিলিয়ে বেসামাল বিজেপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here