ডেস্ক : আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা। তারপরেই বিশ্বকাপ ফাইনালে ঘণ্টা বেজে যাবে। ইতিমধ্যেই বিশ্বকাপ ফাইনাল জ্বরে কাঁপছে গোটা বিশ্ব। তবে শুধু আমজনতা বা ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া নয়, ক্রীড়া জগতের তাবড় তাবড় ব্যক্তিরাও রীতিমত আজকের বিশ্বযুদ্ধ মেগা ইভেন্টে গা ভাসিয়েছেন। রাশিয়া বিশ্বকাপ ফাইনালে নাই বা উঠল ব্রাজিল, নাই বা উঠল আর্জেন্টিনা কিন্তু তাতেও কুছ পরোয়া নেহি। হোক না ক্রোয়েশিয়ার কাছে এটা প্রথম বিশ্বকাপ ফাইনাল। তাতে কি? আর্জেন্টিনার এলএম টেন না থাকলেও ক্রোয়েশিয়ার এলএম টেন তো আছেই। এভাবেই দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাচ্ছে অনেকে। তবে এই বিশ্বযুদ্ধের রেশ সুদুর মস্কো থেকে যেমন কলকাতায় ছড়িয়ে পড়েছে, তেমনই ছড়িয়েছে স্পোর্টস সেলিব্রিটিদের ড্রয়িং রুমে। তাই বিশ্বকাপ ফাইনাল শুরু হও্যার আগে জেনে নিন কে কি বললেন?

ঝুলন গোস্বামী: আমি কোনও দলকেই এগিয়ে রাখছি না বা কোনও দলকেই সমর্থন করছি না। কারণ, এত বড় একটা ফাইনাল ইভেন্টে আগে থেকে কিছু অনুমান করা যায় না। এটা একটা মাইন্ড গেম। যে দল মানসিকভাবে স্ট্রং থাকবে, যেই দল নিজেদের স্নায়ুর চাপ ধরে রাখতে পারবে, আমার মনে হয় সেই দলই শেষ হাসিটা হাসবে। ফাইনাল-সেমিফাইনাল ম্যাচে এভাবে কাউকে ফেভারিট হিসাবে ধরা যায় না। এটা শুধুই একটা ভাল দিনের ব্যাপার। যার ভাগ্য সাথ দেবে সেই জিতবে। তাই আমার কোনও ফেভারিট নেই। আর তাছাড়া আমার ফেভারিট দল আর্জেন্টিনা ও জার্মানি বেরিয়ে গেছে। তাই আমি এক্ষেত্রে দুটো সলকেই সমুরথন করব। যে ভাল খেলবে সেই জিতবে।

শিলটন পাল: আমি ফ্রান্সকে সমর্থন করছি। কারণ, ওরা দলগতভাবে ভাল ও শক্তিশালী। ওদের প্রত্যেকতা পজিশনে ভাল খেলোয়াড় রয়েছে। এমনকি প্রত্যেকটা ম্যাচে ওরা ভাল পারফর্ম করেছে। তাই আমি আশা করছি যে, আজ ওরাই চ্যাম্পিয়ন হবে। তবে ক্রোয়েশিয়ার জেতার চান্স আছে। কারণ, এবারের বিশ্বকাপ বলা যা এক অপ্রত্যাশিত বিশ্বকাপ। আগে থেকে এবারে কোনও দল বা কোনও ম্যাচ নিয়ে অনুমান করা খুব শক্ত। তবে ক্রোয়েশিয়ার ব্যাপারে বলব, ওরাও শেষ কয়েকটা ম্যাচে ভাল খেলেছে। এমনকি এক্সট্রা টাইমে গিয়ে ওরা জিতে এসেছে। তাই ওরা জিততেও পারে। তবে আমি ব্যক্তিগতভারে ফ্রান্সকে সমর্থন করব।

সম্বরণ বন্দোপাধ্যায়: যদি আবেগের দিক থেকে বলি তাহলে ক্রোয়েশিয়া আর বাস্তবের নিরীখে বললে বলব ফ্রান্স। আমি ফ্রান্সকেই সমর্থন করব। কারণ, ওদের স্পীড খুব ভাল। মাঝ মাঠটাও ওদের ভাল আছে। ফরোয়ার্ড র‍্যাঙ্ক ভাল, গোলকিপার ভাল। তবে ক্রোয়েশিয়াও খুব ভাল দল। তবে অ্যাডভান্টেজে আছে ফ্রান্স।

মানস ভট্টাচার্য: আমার সমর্থন বলতে কিছু নেই। আমাকে খেলাটা দেখে সবটা বলতে হয়। তবে ফ্রান্স যেভাবে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল, কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনাল খেলেছে তাতে তারা উত্তরোত্তর ভাল পারফর্ম করেছে। আবার উল্টোদিকে ক্রোয়েশিয়ার কথা যদি বলি, তাহলে ওরা বিশ্বকাপের শুরু থেকেই ভাল খেলেছে। লিগ পর্যায় থেকে নক আউট সব পর্যায়ে ওরা ভাল খেলেছে। ওদের একটা বড় গুণ হল, ওরা পিছিয়ে পড়েও ম্যাচের শেষে জয় পেয়েছে। আমার ভাল লেগেছে এই দলটাকে। তবে পারফর্ম্যান্সের বিচারে আমি ফ্রান্সকেই এগিয়ে রাখব। কারণ, ওদের গতিটা অনেক বেশি।

প্রীতম কোটাল: আজকে যেহেতু ফাইনয়াল সেহেতু সেভাবে আগে থেকে কিছু বলা খুব মুশকিল। ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া দুটো দলই ভাল খেলেছে, তাই আজ তারা ফাইনাল খেলবে। তবে আমি ক্রোয়েশিয়াকে এগিয়ে রাখব। কারণ, শেষ তিন-চারটে ম্যাচ ওরা যেভাবে খেলেছে তা প্রশংসাতুক্য। দলটা ব্যক্তিগতভাবে নয় দলগতভাবে খেলে। প্রত্যেকেই একটা ম্যাচ জেতাবার ক্ষমতা রাখে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here