news bengali

মহানগর ওয়েব ডেস্ক : ম্যালেরিয়া চিকিৎসার ক্ষেত্রে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন অতি পরিচিত একটি ওষুধ। কিন্তু সাধারণ মানুষের কাছে সম্প্রতি এই ওষুধটির নাম পরিচিতি পেয়েছে কোভিড–১৯ সংক্রমণের কারণে। দু’দিন আগেই আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এই ওষুধটি ভারতের কাছে চাওয়ায় এখন গোটা বিশ্বের আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন। মনে করা হচ্ছে করোনা মোকাবিলায় এই ওষুধটি কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে সক্ষম। সারা পৃথিবীতে ভারতেই সবথেকে বেশি উৎপাদন হয় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন। কিন্তু বর্তমানে এই ওষুধের চাহিদা অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় উৎপাদন আরও বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। সেই কথা মাথায় রেখেই এগিয়ে এল বেঙ্গল কেমিক্যালস।

সূত্রের খবর, এদিন স্টেট ড্রাগস কাউন্সিলের কাছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন উৎপাদনের অনুমতি চেয়েছে বেঙ্গল কেমিক্যালস। কলকাতায় অবস্থিত এই সংস্থাটি ভারতের বাজারে এমনিতেই ক্লোরকুইন ফসফেট ২৫০ ওষুধের সাপ্লাই দেয় বেঙ্গল কেমিক্যালস্ অ্যান্ড ফার্মাসিউটিক্যালস্। এই ওষুধটি ম্যালেরিয়া রোগে ব্যবহার করেন চিকিৎসকেরা। এবার সেই একই গোত্রের একটু উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন তৈরির জন্য এই অনুমতি চেয়েছে প্রফুল্ল চন্দ্র রায় প্রতিষ্ঠিত বেঙ্গল কেমিক্যালস।

সূত্রের খবর, আপাতত তাদের কাছে প্রয়োজনীয় ক্লোরকুইন ফসফেট ২৫০ রয়েছে। কিন্তু গোটা বিশ্বে তথা ভারতে করোনা মোকাবিলায় দিনে দিনে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন এর চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় আরও বেশি করে সরবরাহ করার জন্য এই জীবনদায়ী ওষুধ বানাতে চায় বেঙ্গল কেমিক্যালস। এখন শুধু অনুমতির অপেক্ষা তারপরেই কলকাতাতেও তৈরি হবে করোনা মোকাবিলায় জীবনদায়ী ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন। এই ওষুধ তৈরির জন্য বেঙ্গল কেমিক্যালস এর কাছে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামোও রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here