ডেস্ক: বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেল কয়েক শতাব্দী প্রাচীন জলপাইগুড়ির বিখ্যাত ভবানী পাঠকের মন্দির। শুক্রবার রাতে আগুন লেগে পুড়ে যায় এই মন্দিরটি। ঘটনাস্থল খতিয়ে দেখে তদন্তকারীদের অনুমান, প্রদীপ থেকেই এই আগুন লাগে। স্থানীয় বাসিন্দারা আবার অভিযোগ তুলেছেন, কেউ নাশকতার ছক করে মন্দিরটিতে আগুন লাগিয়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ইতিমধ্যেই সেখানে পৌঁছে গিয়েছেন পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব।

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের বিখ্যাত উপন্যাস ‘দেবী চৌধুরানী’-র স্মৃতি বিজড়িত জলপাইগুড়ির রায়গঞ্জে এক চা বাগানে অবস্থিত এই ঐতিহ্যবাহী মন্দিরটি। কাঠের তৈরি কারুকার্যে প্যাগোডা ধাঁচের এই মন্দিরটি প্রায় ২৫০ বছর প্রাচীন। কথিত রয়েছে, এটিই ছিল ভবানী পাঠকের ডেরা। আগুন লাগার পর স্থানীয়দের প্রচেষ্টায় কিছুটা নিয়ন্ত্রণ পাওয়া গেলেও দমকলের দুটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে এসে না পৌঁছান পর্যন্ত আগুন আয়ত্তে আনা যায়নি।

উল্লেখ্য, এই মন্দিরটিকে কেন্দ্র করে পর্যটনের উদ্যোগ নিয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু এই অগ্নিকাণ্ডের ফলে তা কিছুটা থমকে গেল। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করা হবে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গৌতমবাবু জানান, ফের মন্দিরটি তৈরি করবে রাজ্য সরকার। এরপর শীঘ্রই প্রকল্প পুনরায় শুরু করে তা দ্রুত বাস্তবায়িত করা হবে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here