নিজস্ব প্রতিবেদক, বারুইপুর: রাজ্যে ৩ দফায় পঞ্চায়েত নির্বাচন হওয়ার কথা ঘোষণা হয়েছে গত শনিবার। সোমবার থেকে ধুরু হয়েছে মনোনয়নপত্র তোলার কাজ। গোটা রাজ্য জুড়েই চলছে সেই প্রক্রিয়া। তা থেকে বিচ্ছিন্ন নয় দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলার সদর মহকুমার ভাঙড় এলাকার দুটি ব্লকও। এমনিতেই পাওয়ার গ্রিডকে কেন্দ্র করে গত বছর বেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল ভাঙড়। ঘটেছিল প্রাণহানির ঘটনাও। এখনো সেখানকার বেশ কিছু এলাকায় পরিস্থিতি সম্পূর্ন স্বাভাবিক হয়ে ওঠেনি। তারই মধ্যে এবার নির্বাচন এসে পড়ায় বিরোধী শূণ্য ভাঙড়ে এখন টিকিট বিলিকে ঘিরে রাজ্যের শাসক দলের গোষ্ঠীকোন্দল চরমে উঠেছে বলে সেখানকার আমজনতা এখন অভিযোগ তুলেছেন।

বুধবার যেমন অভিযোগ উঠেছে সেখানকার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক আরাবুল ইসলামের গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে, দলেরই নেতা তথা ভাঙড়-২ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতিকে মারধোর করার। অভিযোগ, ভাঙড়-২ ব্লকের তৃণমূল সভাপতি অহিদুল ইসলামের অনুগামী তথা পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি বিমল নস্কর অন্যান্য দিনের মতন এদিন বিডিও অফিসে আসেন। তিনি অফিসে  ঢোকার মুখে আরাবুল ইসলামের অনুগামীরা তার পথ আটকে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তার জামা কাপড় ছিঁড়ে দেওয়াও হয়। যদিও যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আরাবুল ইসলাম। তার পাল্টা অভিযোগ দলেরই কিছু লোক তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে তার ভাবমূর্তী কালিমালিপ্ত করতে চাইছে।

উল্লেখ্য গতকালও মনোনয়ন তোলা কে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়িয়েছিল ভাঙড়ে। ভাঙড়-২ ব্লকের বিডিও কার্যালয়ে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক গোষ্ঠীর লোকজন রীতিমত মিছিল করে মনোনয়ন তুলতে আসে। বড়সড় গন্ডগোলের আশঙ্কায় পুলিশ তড়িঘড়ি বিডিও অফিসের মুখে তাদের মিছিল আটকায়। তারা জোর করে মিছিল নিয়ে এগিয়ে যাবার চেষ্টা করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। পুলিশের লাঠির আঘাতে কয়েক জন আহত হন। পুলিশের আশঙ্কা, নির্বাচনের টিকিট বন্টনকে কেন্দ্র করে এবং মনোনয়ন তোলাকে নিয়ে এর থেকে আরো বড় গন্ডগোল হতে পারে আগামি দিনগুলিতেও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here