ডেস্ক: দলিত সংগঠনের ডাকা ভারত বনধের জেরে সকাল থেকেই উত্তপ্ত দেশের বিভিন্ন রাজ্য। এদিন জায়গায় জায়গায় বিক্ষোভের জেরে অশান্তির আশঙ্কায় বাতিল করা হল পঞ্জাবের সিবিএসইর পরীক্ষা। ওড়িশা, বিহার, পঞ্জাবের মতো দেশের বিভিন্ন রাজ্যে রেল অবরোধ করে বিক্ষোভকারীরা।

তপশিলি জাতি, উপজাতিদের নিরাপত্তায় আইন লঘু করে দেওয়ার অভিযোগে সোমবার ভারত বনধের ডাক দেয় দেশের বেশ কয়েকটি দলিত সংগঠন। তাঁদের সেই ভারত বনধকে সমর্থন করে বেশ কয়েকটি ছোট রাজনৈতিক দল। বনধের জেরে এদিন সকালে আগ্রায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বনধ সমর্থকরা। ভাঙচুর চালানো হয় বহু দোকানে। পঞ্জাবের লুধিয়ানা ও জিরকাপুরে ব্যাপক সংঘর্ষ বাধে বনধ সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে। এদিন ব্যাপক ঝামেলার আশঙ্কায় বাতিল করে দেওয়া হয় পঞ্জাবের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা।

উল্লেখ্য, তপশিলি জাতি উপজাতিদের নিরাপত্তা (প্রিভেনশন অব অ্যাট্রসিটিস) আইন নিয়ে একটি মামলার শুনানিতে কেন্দ্রকে সম্প্রতি বেশ কিছু নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিমকোর্ট। এই আইনে কোনও মামলা করতে হলে ডিএসপি পর্যায়ে তদন্ত করতে হবে। কোনও সরকারি আধিকারিককে গ্রেফতার করতে হলে আগাম অনুমতি নিতে হবে। এই রায়ের পরেই এদিন ভারত বনধে নামে দেশের বিভিন্ন দলিত সংগঠন। তবে আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানিয়েছেন, ‘সুপ্রিমকোর্ট এসসি, এসটি রক্ষা আইন নিয়ে যে রায় দিয়েছে, তার বিরুদ্ধে আজ আবেদন জানাবে সরকার।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here