নিজস্ব প্রতিবেদক, খড়গপুর: ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী হিসেবে প্রচার করার আগে সোমবার ছিল ভারতী ঘোষের প্রথম কর্মীসভা। সেই কারনেই পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ডেবরা এলাকায় হাজির হয়েছিলেন ভারতী। সঙ্গে ছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও দলের মহিলা জেলা নেত্রী অন্তরা ভট্টাচার্য। কয়েকশো কর্মীদের নিয়ে ভারতী এই কর্মী সভা করেন। কর্মীসভার পরেই ভারতী সংবাদমাধ্যমের সামনে বলেন, ‘আমি জিতব। বাংলার মানুষ জবাব দেবে। তৃণমূল রাজনৈতিকভাবে, সামাজিক ভাবে, শিক্ষা স্বাস্থ্যের দিক থেকেও দেউলিয়া হয়ে গিয়েছে। ঘাটাল লোকসভা কিছুই পায়নি। আমরা জিততে পারলে ৩৬৫ দিন ২৪ ঘন্টা ঘাটালের সঙ্গে থাকব। আমি এলে ঘাটালের মানুষের জন্য কাজ করবো।’

এদিন ঘাটালে তৃণমূলের প্রার্থী তথা চিত্রতারকা দেব’র বিষয়ে ভারতীকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘দেব মানুষ ভালো। আমার ছোট ভাইয়ের মতো। এই রাজনৈতিক মোকাবিলা রাজনৈতিক ময়দানেই সীমাবদ্ধ রাখবো।’ এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মা বলে আখ্যা দিয়েছিলেন তৎকালীন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ। এদিন সাংবাদিকরা সেই মা-এর বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘মা অনেক রকমের মা হয়। কৈকেয়ীও মা ছিলেন। তখন এসপি হিসাবে ছিলাম। পুলিশ সুপার হিসেবে যেভাবে মোকাবিলা করার দরকার সে ভাবে মোকাবিলা করেছি। এখন যারা ওর বিরুদ্ধে কথা বলবে তার বিরুদ্ধেই নানা রকম অভিযোগ করবে।’ পুলিশ সুপার থাকাকালীন ভারতী ঘোষ যাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন রকম পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। সেই বিজেপি নেতাদের পাশে বসে এদিন সাংবাদিক সম্মেলন করার বিষয়ে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। এর উত্তরে ভারতী ঘোষ বলেন, ‘একটা সময় দেব ও অজিত মাইতি সকলে আমার সঙ্গে কাজ করেছেন। ওরা অনেক রকম অনেক কিছু বলে। তৃণমূল সরকার যখন যেরকম দরকার মনে করে সেরকম কথা বলে। সুযোগ সন্ধানী একটা সরকার। দেউলিয়া একটা সরকার। এগুলো রাজনৈতিক রণক্ষেত্র, শুধু ঘাটাল নয় সারা বাংলার মানুষ এর জবাব দেবে।’

 

রবিবার খড়্গপুরের মোহনপুর এলাকায় মহিলা মোর্চার কর্মীসভায় বাবুল সুপ্রিয়োর বিতর্কিত গানে তাল মিলিয়ে ছিলেন দিলীপ ঘোষ। প্রকাশ্য সভাতে ওই গানে নেচেছিলেন মহিলা বিজেপি কর্মীরা। এই বিষয়ে বিধি ভঙ্গের অভিযোগ করেছে তৃণমূল। সেই বিষয়ে এদিন দিলীপ ঘোষকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘তৃণমূলের অভিযোগ করা ছাড়া আর কোন কাজ নেই। এতদিন আমরা মার খেতাম আর অভিযোগ করতাম। এখন ওরা অভিযোগ করছে। আসলে ওরা ভয় পেয়ে গিয়ে হাসতেও পারছে না আর নাচতেও পারছে না। আমাদের কর্মীদের নাচ দেখে ওরা ভয় পেয়ে গিয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here