ডেস্ক: সারা দেশে দিন দিন গণধর্ষণের মত ঘটনা বেড়েই চলেছে। তারই আর এক দৃষ্টান্ত পাওয়া গেল এদিনের ঘটনায়। ২০ জন দুষ্কৃতী একটি দলের বিরুদ্ধে এক চিকিৎসকের স্ত্রী এবং মেয়েকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে বিহারের গয়ায়।

সূত্রের খবর, ওই চিকিৎসক বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী এবং মেয়েকে নিয়ে বাইকে করে বাড়ি ফিরছিলেন। সেই সময় আচমকাই সনডিহা গ্রামে তাঁদের রাস্তা আটকে দাঁড়িয়ে পরে দুষ্কৃতীরা। তাঁদের টেনে হিঁচড়ে জঙ্গলের দিকে নিয়ে যায়। ওই পরিবার তাঁদের ছেড়ে দেওয়ার জন্য বারবার অনুরোধ করেন। কিন্তু দুষ্কৃতীরা তাঁদের কোনও কথা শোনেনি। এরপর ওই চিকিৎসককে গাছের সঙ্গে বেঁধে দিয়ে তারই চোখের সামনে তাঁর স্ত্রী এবং মেয়ের ওপর নারকীয় অত্যাচার চালানো হয়। এই ঘটনার কথা কাউকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দেওয়া হয় তাঁদের।

এরপর দুষ্কৃতীরা ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দেয়। তাঁদের যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশকে ফোন করে পুরো ঘটনার কথা জানায় ওই চিকিৎসক। তারপরেই পুলিশ পুরো এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে অভিযুক্তদের আটক করে। তাঁদের মধ্যে ২ দুষ্কৃতীদের শনাক্ত করতে পেরেছে নির্যাতিতারা। এই ঘটনায় সাধারণ মানুষের সুরক্ষার ব্যাপার নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বিহার সরকারের বিরুদ্ধে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here