দ্বিপাক্ষিক পার্থক্য বিরোধের কারণ হওয়া উচিত নয়, চিনকে বললেন জয়শঙ্কর

0
82

মহানগর ওয়েবডেস্ক: কাশ্মীর নিয়ে চিনকে পাশে পেতে আগেই চেষ্টা শুরু করে পাকিস্তান৷ ভারতও বসে নেই৷ ৩ দিনের চিন সফরে গিয়ে মাস্টারস্ট্রোক দিলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর৷ তিনি চিনকে বোঝালেন, দ্বিপাক্ষিক পার্থক্য থাকতে পারে, তবে তা বিরোধের কারণ হওয়া উচিত নয়৷ অন্যদিকে বেজিং নয়াদিল্লিকে বলেছে, তারা ভারত-পাক পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে৷ সম্প্রতি কাশ্মীর নিয়ে ভারত যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেই বিষয়েও তারা ওয়াকিবহাল৷ চিন চায়, এই অঞ্চলে শান্তি বজায় রাখার ব্যাপারে ভারত যেন গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেয়৷ বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্কর চিনের বিদেশমন্ত্রী ওয়াং উইয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন৷

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা রদ করার ফলে উপত্যকা বিশেষ মর্যদা হারিয়েছে৷ কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল সংসদে পাশ হয়ে আইনে পরিণত হয়েছে৷ এরপর তেড়েফুঁড়ে উঠেছে পাকিস্তান৷ তারা চিনকে পাশে নিয়ে রাষ্ট্রসংঘে সরব হতে চাইছে৷ পাক বিদেশমন্ত্রী কুরেশি আগেই চিনে দরবার করেছেন৷ এবার জয়শঙ্কর চিন সফরে গিয়ে তাদের বোঝানোর চেষ্টা করে৷ ওয়াং উই বলেন, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের জন্য সহযোগিতা প্রয়োজন৷ বিশ্ব শান্তি ও মানবিক প্রগতি বজায় রাখার লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে৷ তিনি আরও বলেন, চিন ও ভারত ২ বড় রাষ্ট্র৷ এই অঞ্চলের শান্তি রক্ষায় তারা দায়বদ্ধ৷

দ্বিতীয় মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম কোনও ভারতীয় মন্ত্রী চিন সফরে গেলেন৷ কাশ্মীরের ছায়া যে এই সফরে পড়বে, তা আগেই বোঝা গিয়েছিল৷ তবে ভারত ৩৭০ ধারা বাতিল করার আগেই জয়শঙ্করের চিন সফর ঠিক হয়েছিল৷ জয়শঙ্কর চিনকে স্পষ্ট করে দিয়েছেন, কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ৷ এই নিয়ে পাকিস্তান নাক গলাতে পারে না৷ জয়শঙ্করের সফরে চূড়ান্ত হল শি জিনপিংয়ের এই বছরের শেষে ভারত আসার বিষয়টি৷ তিনি ফের মোদীর সঙ্গে ঘরোয়া বৈঠকে মিলিত হবেন৷ চিনের বিদেশমন্ত্রী আগেই বলেছিলেন, পাকিস্তান ও ভারত চিনের গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু৷ দুই দেশ উন্নয়নশীল৷ অর্থাত্ চিন এই মুহূর্তে কাউকে চটাতে চাইছে না৷ জয়শঙ্করের চিন সফরের দিকে তাকিয়ে দেশ৷ এই সফরের ফলে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নতুন দিশা পায় কিনা এখন সেটাই দেখার৷ এস জয়শঙ্কর চিনকে কতটা বোঝাতে পারলেন, তা সময়ই বলবে৷ পাকিস্তান আগে থেকে ঘুটি সাজাতে শুরু করেছিল৷ জয়শঙ্কর পারলেন তাদের বাড়া ভাতে ছাই দিতে?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here