ডেস্ক: পাহাড়ে আরও কোণঠাসা হয়ে উঠছেন বিমল গুরুং। বেআইনিভাবে অস্ত্র ও প্রচুর পরিমাণে বিস্ফোরক মজুদ করার অভিযোগে বিমল ঘনিষ্ঠ মোর্চ নেতা রয়াল রাইকে গ্রেফতার করল কালিম্পং পুলিশ। সূত্রের খবর, গতকাল বিমল ঘনিষ্ঠ ওই নেতাকে তাঁর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বহুদিন ধরেই তাঁকে খুঁজে চলেছিল পুলিশ। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন জায়গায় গা ঢাকা দিয়ে ছিল সে। অবশেষে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার তাঁর পেডং সাকিয়ং এলাকার বাড়িতে হানা দিয়ে রয়ালকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতার করার পর শুক্রবার তাঁকে কালিম্পং আদালতে তোলা হয়। অস্ত্র রাখার অভিযোগে অভিযুক্ত রয়াল রাইকে ১০ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত। গত বছর মোর্চা আন্দোলনের সময় অস্ত্র ও বিস্ফোরক রাখার অভিযোগে বিমল গুরুং ও দাওয়া লেপচা সহ অনেকের বিরুদ্ধে ইউপিএ ধারায় মামলা রুজু করা হয়। সেই তালিকায় নাম ছিল রয়ালেরও। একসময় দাওয়া লেপচার ছায়াসঙ্গী হিসাবেই পরিচিত ছিল রয়াল রাই।

প্রসঙ্গত, গতবছর পাহাড়ে মোর্চা আন্দোলনের সময় থেকেই ৩২ বছর বয়সী রয়ালকে পাকড়াও করার জন্য তক্কে তক্কে ছিল পুলিশ। এই নিয়ে গুরুং ঘনিষ্ঠ তৃতীয় মোর্চা নেতার গ্রেফতারি হল। যার ফলে গুরুং আপাতত অনেকটাই ব্যাকফুটে। অন্যদিকে, পাহাড়ে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের আশঙ্কায় ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন দেশদ্রোহিতায় অভিযুক্ত বিমল গুরুং। তাঁর দাবি, পাহাড়ের সীমান্তবর্তী এলাকায় বেআইনিভাবে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ হচ্ছে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিমলের নিশানায় অবশ্য বাংলার শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। ভোটব্যাঙ্ক সুরক্ষিত করতে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here