ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাহাড় সফরের মধ্যেই সশস্ত্র হামলার পরিকল্পনা ছিল বিমল গুরুংয়ের। এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন দার্জিলিংয়ের পুলিশ সুপার অমরনাথ। হামলার জন্য যে অস্ত্রগুলি মজুত করা হয়েছিল সেগুলি আজ দার্জিলিংয়ের লিম্বু বস্তি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে তিনটি অত্যাধুনিক মানের রাইফেল ও বেশ কিছু ধারালো অস্ত্র। উদ্ধার হওয়া অস্ত্র দেখিয়ে এসপির দাবি, এটা মজুত অস্ত্রের মাত্র দুই–তৃতীয়াংশ। এধরনের আরও অস্ত্র মজুত থাকতে পারে, সেগুলির সন্ধান চলছে।

প্রসঙ্গত, দিনকয়েক আগেই গ্রেফতার করা হয় বিমল গুরুংয়ের গাড়ি চালককে। তাঁকে জেরা করেই এই হামলার পরিকল্পনা ও লুকিয়ে রাখা অস্ত্রের হদিশ পাওয়া গিয়েছে বলে জানায় পুলিশ। একদা পাহাড়ের বেতাজ বাদশাহ বিমল গুরুংয়ের নির্দেশেই এই অস্ত্র মজুত করা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। পুলিসের দাবি, বাখর মুখিয়া নামে এক ব্যক্তিকে জেরা করে মিলছে অস্ত্রের সন্ধান। বাখর বিমল গুরুংয়ের সময় রিলিফের ব্যবস্থায় চেয়ারম্যান ছিলেন। পুলিশ আরও জানায়, বিমলের অস্ত্রের জোগান ক্রমগত দিচ্ছে সিকিমই। শুধু তাই নয়, সিকিমের তরফ থেকে কয়েক দফায় প্রায় ১.৫ কোটি টাকার আর্থিক সাহায্য এসেছে বলেও সাংবাদিক সম্মেলনে দাবি করেন পুলিশ সুপার।

মুখ্যমন্ত্রীর সফরকালে এহেন বিরাট পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার হওয়ার ফলে নতুন করে প্রশ্নচিহ্ন উঠে গিয়েছে তাঁর নিরাপত্তা নিয়ে। শিল্প সম্মেলনের জন্য এখন কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপে পাহাড়। কোনও রকম অশান্তি এড়াতে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসনও।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here