kolkata bengali news

ডেস্ক: এসএসসি চাকরিপ্রার্থীদের অনশন নিয়ে এখন রাজ্যে চর্চা তুঙ্গে। ২২ দিন হয়ে গেলেও তাদের দিকে কোনও নজরই দেয়নি রাজ্য সরকার। অবশেষে, অনশন লাগাতার ২৩ দিনে পা দেওয়ার পর সাংবাদিকদের সামনে বিবৃতি দেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। স্পষ্টভাবে জানান, এসএসসি চাকরিপ্রার্থীদের পাশে রয়েছে রাজ্য সরকার। কিন্তু অনশনের রাস্তায় হেঁটে ‘অযোগ্য’ কেউ চাকরির দাবি করতে পারেন না। শিক্ষামন্ত্রীর এই বিবৃতির পরই আজ অনশনস্থলে যান বামফ্রন্ট চেয়ারম্য়ান বিমান বসু। সেখানে গিয়ে রাজ্য সরকার ও শিক্ষামন্ত্রীকে একহাত নেন তিনি।

এসএসসি চাকরিপ্রার্থীদের পাশে দাঁড়িয়ে প্রথমেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বিমান বসু বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর চেয়ারে বসে থেকে পার্থবাবুর কখনই এমন মন্তব্য করা উচিৎ হয়নি। কারা যোগ্য, কারা নয়, সেইসব বাজে কথা না বলে সমস্যার সমাধান করা উচিৎ। তিনি আরও বলেন, অনশনরত কোনও মানুষের কথা শুনতেই চাইছে না রাজ্য সরকার। হয়তো সরকার অপেক্ষা করছে এখানে কেউ মারা যাবে, তারপর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। যদি এই ঘটনা ঘটে তবে রাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থায় আবারও কালো দিন ফিরে আসবে। রাজ্য সরকারের এই সমস্যার সমাধানে আরও আগেই হস্তক্ষেপ করা উচিৎ ছিল। কিন্তু রাজ্য সরকার কারও কথাই কর্ণপাত করছে না। বিমানের কথায়, দোলে কুকুরের গায়ে রঙ দিলে ৬ মাসের জেল ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার, অন্য়দিকে, চাকরিপ্রার্থীদের দিকে নজরই দেওয়া হচ্ছে না। আগামীদিনের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ভবিষ্যত নিয়ে ছেলেখেলা করছে সরকার। চাকুরিপ্রার্থীদের সঙ্গে রাজ্য যে আচরণ করছে তা কাপুরুষোচিত, বর্বরোচিত, অসভ্য। বিমান বসুর দাবি, শনিবারই শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অনশনস্থলে এসে এদের সঙ্গে আলোচনা করে স্বল্প বা দীর্ঘমেয়াদি সমাধান বের করা উচিৎ।

 

উল্লেখ্য, শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘চাকরির ক্ষেত্রে কোনও ভাবেই মেধা ও যোগ্যতাকে বিসর্জন দিয়ে দেওয়া যায় না। যা সমস্যা হয়েছে, আইনের মাধ্যমেই সেই সমস্যার সমাধান করতে হবে।’ পাশাপাশি তিনি অনশনকারীদের কাছে আবেদন জানান তারা যেন অনশন প্রত্যাহার করে নেন। চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে দেখার জন্য ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠনের কথাও ঘোষণা করেন তিনি। পার্থবাবু বলেন, যে যে অভিযোগ রয়েছে সেগুলি এই কমিটিই খতিয়ে দেখবে। সূত্রের খবর, অনশনকারীদের বলা হয়েছে, তাঁদের সমস্ত অভিযোগ দু’দিনের মধ্যে লিখিত ভাবে ওই কমিটির কাছে জমা দিতে৷ কমিটি সেই সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখবে৷ এবং প্রয়োজনে ১৫ দিনের মধ্যে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here