kolkata bengali news

Highlights

  • ‘নরেন্দ্র মোদী মাথা মোটা, অমিত শাহ মাথা মোটা’
  • ‘বাড়িতে কাক ডাকা অশুভ, কাক ডাকলে ঝাটা দিয়ে তাড়িয়ে দিন’
  • বীরভূমের সভা থেকে তীব্র আক্রমণ অনুব্রতর

নিজস্ব প্রতিনিধি, বীরভূম: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে তৃণমূলনেত্রীর সাফ বার্তা আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। কলকাতা ছেড়ে জেলায় জেলায় মিছিলে সামিল হয়েছেন মমতা। কলকাতার সভা থেকেই দলনেত্রীর স্লোগান ছিল কা কা ছি ছি। এবার এই সিএএ-কে তীব্র কটাক্ষ বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের। এদিন বীরভূমের সিউড়ি এক নম্বর ব্লকে একটি দলীয় সভায় বিজেপিকে কার্যত কাকের সঙ্গে তুলনা করলেন বীরভূমের তৃণমূল প্রধান। এদিন তিনি সভায় উপস্থিত মহিলাদের বলেন, ‘বাড়িতে কাক ডাকা অশুভ, কাক ডাকলে ঝাটা দিয়ে তাড়িয়ে দিন’। পশ্চিমবঙ্গে ক্যা ক্যা করতে দেব না’। বিজেপির বিরুদ্ধে তীর্যক মন্তব্য অনুব্রত মণ্ডলের। সভামঞ্চে অনুব্রতর আরও তির্যক মন্তব্য প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে। অনুব্রত বলেন, নরেন্দ্র মোদী মাথা মোটা, ‘অমিত শাহ মাথা মোটা’। এদের কোনও বুদ্ধি নেই। মানুষকে পরিষেবা কীভাবে দিতে হয় তা জানে না’। অভিযোগ অনুব্রতর।

এদিনের সভা থেকে দলনেত্রীর বার্তা অনুযায়ী অনুব্রত বলেন, ‘আমরা এনআরিস-সিএএ-র বিরুদ্ধে আন্দোলন চালিয়ে যাব। এখানে এনআরসি-সিএএ লাগু হতে দেব না’। সাফ বার্তা অনুব্রতর। ‘রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার চেষ্টা করলে আরও ভয়ঙ্কর আন্দোলন করব আমরা’। শরীরের শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত আন্দোলন চলবে, মরে যাব কিন্তু পিছিয়ে আসব না। বক্তব অনুব্রতর। দেশের কোনও প্রধানমন্ত্রী কোনওদিন বলেনি এনআরসি করতে হবে। তাহলে মাথা মোটা মোদীর মাথায় কী ভরা আছে যে বলল এনআরসি করতে হবে। ভারতবর্ষের জন্য কী দরদ, কটাক্ষ কেষ্টর।

এদিনের সভায় সিএএ-র সমর্থনে বিজেপির মিছিল, সভা বিভিন্ন কর্মসূচির বিষয়ে অনুব্রত বলেন, পাগলের প্রলাপ বকছে বিজেপি। জনসমর্থন নেই। মানুষের সঙ্গে কোনও যোগ নেই বিজেপির। মল্লারপুরে অর্জুন সিং-এর সভা প্রসঙ্গে অনুব্রত বলেন, গুনে গুনে মাত্র ১২০ জন লোক হয়েছে সেই সভায়। একজনও বেশি থাকলে পর পর তিনদিন কোনও সভা করবেন না তিনি। তিনিও এও বলেন, আগামী ১১ জানুয়ারি মল্লারপুরে তাঁর সভা রয়েছে। সেই সভায় যদি ৭০ থেকে ৮০ হাজার লোক না হয় তাহলে তিনি সভায় বক্তব্য রাখবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিলেন তিনি। অনুব্রতর কটাক্ষ অর্জুন সিং বাঁচার জন্য তারাপীঠে এসেছে মায়ের কাছে পুজো দিতে। রাজ্যে শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই রয়েছেন। মানুষ বুঝে গেছেন কে কাজ করছেন, আর কারা করছেন না। বক্তব্য অনুব্রতর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here