নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: রবিবার কোচবিহার শহরের একটি বিরিয়ানি দোকান বন্ধ করে দিল কোচবিহার পুরসভা কর্তৃপক্ষক। বিরিয়ানিতে থাকা মাংস নিয়ে অভিযোগ ও বিনা লাইসেন্সে দোকান চালানোর কারনে ওই দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে পুরসভার তরফে জানা গিয়েছে। শহরের আর এন রোড অবস্থিত ওই বিরিয়ানির দোকানটি ঘিরে বেশ কিছু দিন ধরে অভিযোগ আসছিল পুরসভার কাছে। রবিবার অভিযান চালিয়ে ওই দোকান থেকে মাংসের টুকরো দেখে সন্দেহ হওয়ায় দোকান বন্ধ করে দেন পুর আধিকারিকেরা।

জানা গিয়েছে রবিবার ওই দোকান থেকে শহরের এক বাসিন্দা মটন বিরিয়ানি কেনেন। কিন্তু তাতে থাকা মাংসের টুকরো দেখে তার সন্দেহ হয়। পরে বিষয়টি তিনি পুরসভাকে জানান। তারপরই পুরসভার ফুড ইন্সপেক্টার বিশ্বজিৎ রায় কাউন্সিলার তপন ঘোষকে সঙ্গে নিয়ে ওই দোকানে পরিদর্শনে আসেন। সেখানে তাদেরও মাংসের টুকরো দেখে সন্দেহ হওয়া মাংসর টুকরোর পরীক্ষা করার জন্য কলকাতা পাঠানোর জন্য সংগ্রহ করেন। একই সঙ্গে ওই দোকানদার কোন লাইসেন্স ছাড়াই দোকান চালানোয় তারা দোকানে তালা মেরে দেন। আপতত ওই দোকান বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন বিশ্বজিৎ রায়। তিনি জানিয়েছেন,’বিনা লাইসেন্সে এই দোকান চলছিল। একই সঙ্গে দোকানে যে মাংস পরিবেশিত হচ্ছিল তা সন্দেহজনক। মাংসর টুকরোগুলো অনেকটাই বড়। তাই মাংসের টুকরো সংগ্রহ করে নেওয়া হয়েছে পরিক্ষার জন্য। ওগুলি সব কলকাতায় পাঠানো হবে। পাশাপাশি এর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার পুরসভার চেয়ারম্যান ভূষণ সিং বলেন,’বেশ কিছু দিন ধরে আমাদের কাছে ওই দোকানের নামে অভিযোগ আসছিল। ওই দোকানে পাঁঠার মাংসর নাম করে অন্য কিছু মাংস দেওয়া হচ্ছে। আজ সেই অভিযোগ পাওয়ার পর আমাদের আধিকারিকরা দোকানে অভিযান চালিয়ে মাংসের টুকরো সংগ্রহ করেছেন। পাশাপাশি দোকান চালাবার কোন কাগজপত্র না থাকায় দোকানটি সিল করে দেওয়া হয়েছে। ভাঙড় কাণ্ডের পর থেকে পুরসভা বারবার অভিযান চালাছে। এধরনের অভিযান লাগাতার চলবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here