বিশেষ প্রতিবেদক, জলপাইগুড়ি: লোকালয়ে ঢুকে ফের হুলস্থুল বাধাল একটি গাউর। দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় ঘুমপাড়ানি গুলিতে অচেতন করে সেটিকে উদ্ধার করেন বনকর্মীরা। সোমবার সকাল সাতটা নাগাদ সোনগাছি চা-বাগানের বাটাগোলাই গ্ৰামে একটি গাউর (ভারতীয় বাইসন) ঢুকে পড়ে। খবর পেয়ে মাল স্কোয়াডের বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে হাজির হন। গরুমারা নর্থ রেঞ্জের বনকর্মীরাও পৌঁছে যান সেখানে। চা-বাগানের বাসিন্দা সহ অত্যুৎসাহী প্রচুর লোকজন গাউরটিকে দেখার জন্য ভিড় করেন । পরিস্থিতি আয়ত্তের বাইরে যাচ্ছে দেখে এসএসবি জওয়ানরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ভিড় সামাল দিতে।

খবর পাওয়া মাত্র সেচ্ছাসেবী সংস্থা স্পোরের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান এবং বনকর্মীদের সঙ্গেই উদ্ধারকার্যে নেমে পড়েন। গাউরটিকে ঘুমপাড়ানি গুলি ছুঁড়ে অচেতন করে গাউরটিকে উদ্ধারের জন্য বন দফতরের বিশেষজ্ঞ দলও তৈরি হয়ে থাকে। দু’বারের প্রচেষ্টায় গাউরটিকে অচেতন করা সম্ভব হয় এবং উদ্ধারকার্য শুরু হয়। বন দফতরের আধিকারিকরা জানান, গাউরটিকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে এবং সেটি সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে গেলে চাপড়ামারি সংরক্ষিত বনাঞ্চলে ছেড়ে দেওয়া হবে।

 

প্রসঙ্গত, গত ১৭ মার্চ আলিপুরদুয়ার জেলার ডুয়ার্সের শামুকতলা সংলগ্ন দামসি-ডাঙ্গি এলাকায় চলে এসেছিল দু’টি গাউর। বাইসনের শিঙের আঘাতে আহত হন দু’জন গ্রামবাসী। বক্সা বন বিভাগের কর্মীরা একটি গাউরকে উদ্ধার করে জঙ্গলে ফেরত পাঠাতে সমর্থ হলেও অন্যটিকে বাঁচাতে পারেননি। অত্যুৎসাহী হাজার জনতার ভিড়ে দিশেহারা হয়ে অতিরিক্ত ছোটাছুটির ফলেই শেষ অবধি একটি গাউরের মৃত্যু হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here