বিজেপি কর্মীর মা-কে শ্লীলতাহানি, অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূলের

0
bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, গোপীবল্লভপুর: বিজেপি কর্মীর মায়ের শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল এক তৃণমূল ছাত্র নেতা ও তার দলবলের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার পরেই উত্তেজনা ছড়িয়েছে গোপীবল্লভপুর এলাকায়। রাবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে গোপীবল্লভপুর এক ব্লকের বর্গিডাঙা এলাকায়। এই ঘটনার সঙ্গে যুক্তদের গ্রেফতার না করা হলে আগামী দিনে থানা ঘেরাও করার কর্মসূচি হবে বলে জানিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

বিজেপি’র অভিযোগ, রবিবার রাতে গোপীবল্লভপুর থানার বর্গিডাঙা মোড়ে বিজেপি কর্মী প্রসিত দোলুইয়ের দাদকে মারধর এবং তার মাকে শ্লীলতাহানি করা হয়েছে। অভিযোগ, রাতে প্রসিত দোলুইয়ের মা এবং বাড়ির লোক জন রাত সাড়ে দশটা নাগাদ বাড়িতে খাওয়া দাওয়া করছিলেন। বাইরে তার ছেলে প্রসূনকে মারধর কারার আওয়াজ এবং চিৎকার শুনে তিনি বেরিয়ে আসেন। পুষ্পলতা দোলুই বলেন, ‘তখন রাত সাড়ে দশটা বাজে। ছেলের চিৎকার শুনে বাইরে এসে দেখি কয়েক ছেলে মিলে আমার ছেলেকে গলা চেপে ধরেছে। আমি ছাড়াতে গেলে আমাকেও গলা চেপে ধরে। আমরা চুল ধরে টেনেছে। আমরা কাপড় ছিঁড়ে দিয়েছে। ছেলেগুলোকে চিনি। থানায় রাতে দু’ঘণ্টা বসে থেকে অভিযোগ করেছি।’

বিজেপি কর্মী প্রসিত দলুই বলেন, ‘আমরা দাদা ও মা-কে ফেলে মেরেছে ওরা। মা আটকাতে গেলে তাকেও বেধড়ক মারে। পুলিশ আমাদের সাহায্য করছে না। আমরা দোষীদের গ্রেফতারে দাবি করছি।’ তাদের আরও অভিযোগ, তৃণমূল ছাত্র নেতারা এর আগেও স্থানীয় একটি মেসে থেকে ঝামেলা করেছে। এই বিষয়ে ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপি’র সাধারণ সম্পাদক অবনী ঘোষ বলেন, ‘আমাদের এক কর্মী এবং তার মাকে মারধর করে শ্লীলতাহানি করেছে তৃণমূ‌লের ছাত্র পরিষদের ছেলেরা। ব্লক যুব ছাত্র পরিষদের সভাপতির নেতৃত্বে এই ঘটনা ঘটেছে। যদি দোষীদের গ্রেফতার না করা হয়, তা হলে আগামী শুক্রবার গোপীবল্লভপুর থানা ঘেরাও করা হবে।’

অন্যদিকে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি সত্যরঞ্জন বারিক বলেন, ‘রাতে কলেজের ছেলেরা যারা মেসে থাকে তারা হোটেল থেকে খেয়ে মেসে ফিরছিল। বিজেপির ছেলেরা রাস্তায় তাদের গালিগালাজ করে। মেসে ঢুকে মারধর করে। ভাঙচুর করে মেসের জিনিসপত্র। সেখান থেকে ফিরে এসে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here