ডেস্ক: নজিরবিহীন!
এবার পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে রাজনীতির আঁচ এসে পড়ল আদালতেও ৷ বৃহস্পতিবার পঞ্চায়েত মামলার শুরুতেই বিচারপতির সামনে প্রকাশ্যে হাতাহাতিতে জড়ালেন আইনজীবীরা৷ গতকালই সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল, পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে তাদের কিছু করার নেই৷ তারা সোজা দেখিয়ে দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টকে৷ সেইমতো এদিন মামলা শুরুর সময়ই হাতাহাতি শুরু হয় দুদল আইনজীবীর মধ্যে৷ এই মুহূর্তে হাইকোর্টে চলছে কর্মবিরতি৷ তার মধ্যে কেন এই মামলা হচ্ছে, তা নিয়ে তৃণমূলপন্থী ও বিজেপি সমর্থক আইনজীবীদের মধ্যে গোলমাল শুরু হয়৷ গোলমাল থেকে শুরু হয় হাতাহাতি৷ অভিযোগ, বিচারপতির সামনেই মারা হয় বিজেপিপন্থী আইনজীবীদের৷

 

এদিন হাইকোর্টে বিজেপির আবেদন বাতিলের আবেদন জানান আইনজীবী ও সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়৷ গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ আনেন কল্যাণ৷ এদিকে, নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধি নীলাঞ্জন সান্যালের কাছে কমিশনের অবস্থান জানতে চান বিচারপতি৷ আদালতে বিচারপতির প্রশ্নবাণে জর্জরিত হতে হয় কমিশনের প্রতিনিধিকে ৷ তিনি জানতে চান সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের প্রেক্ষিতে কমিশন কী ব্যবস্থা নিয়েছে৷  সবমিলিয়ে, ময়দান ছেড়ে এবার আদালতেও পৌঁছলো অশান্তি, এমনটাই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷ অন্যদিকে, পঞ্চায়েত ভোটে অশান্তি বন্ধ এবং সময়সীমা বাড়ানো নিয়ে বিজেপির সঙ্গে এককাট্টা হয়েছে কংগ্রেস৷ এদিন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি ও সাংসদ অধীর চৌধুরীও মামলা করতে যান হাইকোর্ট৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here