মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিরামহীন হিংসা ও রক্তপাতের রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে মাঠে নেমে পড়ল বিজেপি। উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়ায় বোমাবাজি ও পাল্টা দুষ্কৃতী পুলিশ সংঘর্ষে নিহতদের পরিবার পিছু ১০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করল বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব। অর্জুন সিং জেতার পর থেকেই বিজেপির বর্তমান শক্ত গড় ভাটপাড়া উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক হিংসায়। গতকালও বোমাবাজি হয়। গুলি লেগে দুই দুষ্কৃতী নিহত হয়। প্রাথমিকভাবে গুলি চালানোর দায়ে প্রশাসনের দিকে আঙুল উঠলেও তা সরাসরি খারিজ করে দিয়েছে পুলিশ। অন্যদিকে এদিনও সকাল থেকে বোমাবাজি শুরু হয়েছে কাঁকিনাড়া বাজারে। যা নিয়ে ফের একবার ভয় সৃষ্টি হয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

অশান্তির আবহের মধ্যেই এদিন ভাটপাড়ার সামগ্রিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ঘটনাস্থলে যাচ্ছে বিজেপির সংসদীয় দল। ভাটপাড়া সংলগ্ন এলাকায় ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখার পাশাপাশি ১৪৪ ধারাও জারি রয়েছে। এরমধ্যে বিজেপির সংসদীয় দল সেখানে উপস্থিত হলে উত্তাপ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রশাসনের সেই কারণে নিরাপত্তা আরও আঁটসাঁট করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, এলাকা পরিদর্শনেরর পর এদিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে রিপোর্ট জমা দেবে ওই দল। এই রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই ভাটপাড়া নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপের নেওয়ার কথা ভাববে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

অন্যদিকে ভাটপাড়ায় গতকাল দু’জনের মৃত্যুর পরই বিকেলে সরিয়ে দেওয়া হয় ব্যারাকপুর কমিশনারকে। আজই বারাকপুরের কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব নিচ্ছেন মনোজ ভার্মা। অন্যদিকে, বিজেপি সাংসাদ অর্জুন সিং বেলা ১১টা নাগাদ সিপি অফিস ঘেরাও করার কথা ঘোষণা করেছেন। ঘেরাওয়ের সময় দুই নিহত ব্যক্তির মৃতদেহ নিয়েও বিজেপি মিছিল করতে পারে বলে জানা গিয়েছে। মিছিলের পরই ওই মৃতদেহ দুটি সৎকার করা হবে বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার গোটা অশান্তির ঘটনা ছড়ালেও শুক্রবারও উত্তপ্ত রয়েছে ভাটপাড়ার পরিস্থিতি। সংঘর্ষের ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১৪ জনকে গ্রেফতার করেছে প্রশাসন। গতকাল নবান্নে এক জরুরি বৈঠকের মাধ্যমে ৩ দিনের মধ্যে ভাটপাড়ায় শান্তি ফেরানোর কড়া নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here