ডেস্ক: তাহলে কী ‘দু-হাজার উনিশ, বিজেপি ফিনিশ’? প্রশ্নটা কিন্তু উঠে গেল৷ নরেন্দ্র মোদী যে অপ্রতিরোধ্য নয়, এদিনের ফলাফলে সেটা ফের একবার স্পষ্ট হয়ে গেল৷ বৃহস্পতিবার গোটা দেশজুড়ে ১০টি বিধানসভা উপনির্বাচন ও ৪টি লোকসভা উপনির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ পেল৷ সেইসঙ্গে কর্ণাটক বিধানসভার একটি আসনেও ভোটের ফলাফল বেরিয়েছে৷ সর্বত্রই দেখা গিয়েছে বিরোধী কিংবা বিরোধী জোটের জয়জয়কার৷ কার্যত মুখ থুবড়ে পড়েছে বিজেপি৷ উপনির্বাচ হলেও গোটা দেশের নজর ছিল ফলাফলের দিকে৷ ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের আগে এই উপনির্বাচন ছিল নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহের জুটির কাছে অগ্নি পরীক্ষা৷ আর এই পরীক্ষায় ডাহা ফেল মোদী-শাহ৷

কর্ণাটকে সরকার গড়তে ব্যর্থ হওয়ার পর লোকসভা নির্বাচনের আগে ড্যামেজ কন্ট্রোলের একটা সুযোগ ছিল এই উপনির্বাচনগুলি৷ সেটা তো হলোই না, উল্টে ড্যামেজ হয়ে গেল গেরুয়া শিবির৷ যা দেখে খুব স্বাভাবিকভাবেই কপালে ভাঁজ পড়ছে মোদীর৷ অন্যদিকে, নতুন অক্সিজেন পেয়ে অনেকটাই চাঙ্গা রাহুল গান্ধির কংগ্রেস৷ আঞ্চলিক দলগুলিও কেউ এককভাবে, কেউ আবার জোটবদ্ধ হয়ে লড়াই করে মোদীর ঝড় থামিয়ে দিয়েছে৷

এদিন উপনির্বাচনের ফলাফলে গোটা দেশের নজর ছিল উত্তরপ্রদেশ কৈরানা লোকসভা এবং নুরপুর বিধানসভা আসনটির দিকে৷ দুটি আসনই ছিল বিজেপির দখলে। এবং দুটিতেই তারা গো-হারা হেরেছে৷ মনে রাখা দরকার, উত্তর প্রদেশে কিন্তু জাতীয় রাজনীতির চালিকা শক্তি৷ সেখানে বিজেপি পিছনে ফেলে বাজিমাৎ করল বিরোধী জোট৷ এই উত্তর প্রদেশ থেকে জিতেই প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন নরেন্দ্র মোদী৷ বিধানসভায় সিংহভাগ আসন জিতে মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ৷ কিন্তু কেন্দ্রে-রাজ্যে নিরঙ্কুশ গরিষ্ঠতা নিয়েও একের পর এক উপনির্বাচনে উত্তর প্রদেশে মুখ থুবড়ে পড়ছে মোদীর দল৷

পশ্চিমবঙ্গে উপনির্বাচন ছিল দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার মহেশতলা বিধানসভা কেন্দ্রে। তৃণমূল কংগ্রেস সেখানে শুধু মার্জিন বাড়ানোই নয়, রেকর্ড
আসন ব্যবধানে জয় পেয়েছে৷ অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন ঘাসফুল প্রার্থী দুলাল দাস৷ গত সোমবার দেশের ১০ রাজ্যে ৪টি লোকসভা কেন্দ্রে এবং ১০টি বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন হয়। এ ছাড়া কর্নাটকে একটি আসনে, বাকি থাকা বিধানসভা ভোটও হয় ওই দিন। বৃহস্পতিবার ইভিএম খোলার পরই মহারাষ্ট্রে একটি লোকসভা আসন এবং উত্তরাখণ্ডের একটি বিধানসভা আসন ছাড়া বিজেপি কোথাও হালে পাণি পায়নি।

এক নজরে দেখে নিন বিভিন্ন বিধানসভা ও লোকসভা আসনের ফলাফল:

• উত্তরপ্রদেশের কৈরানা লোকসভা কেন্দ্রটি বিজেপির থেকে ছিনিয়ে নিল ইউপিএ জোটসঙ্গী আরএলডি। কংগ্রেস, এসপি, বিএসপি সমর্থিত আরএলডি প্রার্থী তবসসুম হাসান জিতলেন ৫৫ হাজারের বেশি ভোটে।

• মহারাষ্ট্রের পালঘর লোকসভা আসনে ২৯,৫৭২ ভোটে জিতল বিজেপি। আসনটি অবশ্য বিজেপি’র দখলেই ছিল।

• মহারাষ্ট্রের ভান্ডারা গোন্ডিয়া লোকসভা আসনটি বিজেপির থেকে নিল এনসিপি-কংগ্রেস জোট৷

• নাগাল্যান্ডের একমাত্র লোকসভা আসনটি ১,৫৫,৯২২ ভোটে জিতল বিজেপির জোটসঙ্গী এনডিপিপি৷

• পশ্চিমবঙ্গের মহেশতলায় ৬২,৩২৪ ভোটে জয়ী তৃণমূল। দ্বিতীয় স্থানে বিজেপি। তৃতীয় বাম-কংগ্রেস জোট৷

• কেরলের চেঙানুরে ২০,৯৫৬ ভোটে জয়ী সিপিএম প্রার্থী।

• বিহারের জোকিহাটে ৪১, ২২৪ ভোটে জয়ী আরজেডি প্রার্থী শাহানওয়াজ। আসনটি ছিল বিজেপির জোটসঙ্গী জেডিইউ-এর দখলে।

• উত্তরপ্রদেশে নুরপুরে জিতল সমাজবাদি পার্টি। বিজেপির দখলে থাকা আসনটিতে ৬,২১১ ভোটে জিতল এসপি।

• পঞ্জাবের বিজেপির জোটসঙ্গী শিরোমণি অকালি দলের দখলে থাকা শাহকোটে জিতল কংগ্রেস। জয়ের ব্যবধান ৩৮ হাজার৷

• কর্নাটকের রাজ রাজেশ্বরী নগর বিধানসভা নির্বাচনে জিতল কংগ্রেস। জয়ের ব্যবধান ৪১ হাজার৷

• উত্তরাখণ্ডের থারালি বিধানসভা কেন্দ্রে ১৯৯০ ভোটে জয় পেল বিজেপি।

• মেঘালয়ের আমপাতি বিধানসভা কেন্দ্রে জয়ী কংগ্রেস প্রার্থী মিয়ানি ডি’ শিরা।

• ঝাড়খণ্ডের গোমিয়া বিধানসভা কেন্দ্রে জয়ী ইউপিএ জোটসঙ্গী ঝাড়খন্ড মুক্তি মোর্চা প্রার্থীর৷ জয় এল ১৩০০ ভোটে৷

• ঝাড়খণ্ডের সিল্লি বিধানসভা কেন্দ্রে জয়ী ইউপিএ জোটসঙ্গী ঝাড়খন্ড মুক্তি মোর্চা প্রার্থীর৷ জয় এল ১৩ হাজার ভোটে৷

• মহারাষ্ট্রের পালুস-কাড়েগাঁও বিধানসভা কেন্দ্রে জয়ী কংগ্রেস প্রার্থী বিশ্বজিৎ পতঙ্গরাও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here