নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাল: বিজেপির বাইক র‍্যালিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা। কাঁটাখালি থেকে চন্দ্রকোনা দিনভর উত্তেজনা। আগামি সোমবার পশ্চিম মেদিনীপুরে একটি দলীয় জনসভায় আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই কর্মসূচিকে সামনে রেখে শনিবার পশ্চিম মেদিনীপুরের কাঁটাখালি থেকে ঘাটাল, দাসপুর, চন্দ্রকোনা হয়ে ডেবরা পর্যন্ত প্রায় ৬০ কিমি পথ একটি বাইক র‍্যালির মাধ্যমে অতিক্রম করার আয়োজন করা হয়েছিল বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা কমিটির উদ্যোগে। আর সেই বাইক র‍্যালিকে রাস্তায় আটকে দেবার কারনে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগে তুলে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল বিজেপির যুব মোর্চার কর্মীরা। ঘটনার জেরে শুধু যানজটই সৃষ্টি হল না, চরম ভোগান্তির মুখে পড়লেন সাধারন মানুষ। বিভিন্ন বাধা উপেক্ষা করে বিকেল নাগাদ মিছিল এসে শেষ হয় চন্দ্রকোনার শ্রীনগরে। এই মিছিলে প্রায় তিন হাজার কর্মী যোগ দেয়।

বিজেপি ঘাটাল জেলার সংগঠনিক সভাপতি রতন দত্তের অভিযোগ,’আমাদের কর্মসূচি বানচাল করতে তৃণমূল কর্মীরা পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন জাগায় আমাদের মিছিলটি আটকে দেয় এবং আমাদে কর্মীদের হেনস্থা করে। প্রধানমন্ত্রীর কর্মসূচি ঘোষনা হবার পর থেকেই বিভিন্ন জাগায় তৃনমূলের কর্মীরা আমাদের কর্মীদের উপর হুমকি ও শাসানী শুরু করেছে। কয়েক দিন আগে রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভুঁইঞা ঘাটালের কর্মী সভায় এসে বলেছেন এমন পরিস্থিতি তৈরী করুন যাতে বিজেপি কর্মীরা জনসভায় যেতে না পারে। এখন তো দেখছি তৃণমূলের নেতা কর্মীরা সেটাই করছেন। এতে কিন্তু বিজেপি কর্মীরা ভয় পেয়ে যাবে না, তাদের আটকানো যাবে না। এবার ভয় পাওয়ার সময় তৃনমূলের। ওরা বুঝে গেছে বিজেপি আসছে। তাই এ সব করে বেড়াচ্ছে।’ এ বিষয়ে পুলিশের তরফে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, কোথায় বিজেপির মিছিল আটকানো হয়নি। পুলিশ সজাগ ছিল যাতে কোথাও যানজট না হয়। তবে ওই বাইক র‍্যালিতে অংশ নেওয়া অনেকেরই মাথায় হেলমেট ছিল না। পুলিশ তাদের আটকে সর্তক করে ছেড়ে দিয়েছে। তৃনমূল জেলা সভাপতি অজিত মাইতি আবার জানিয়েছেন, বিজেপি নাটক করছে। তৃনমূলের কোন কর্মী কোথায় কোন গণ্ডগোল করেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here