kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, ইংরেজবাজার: দুষ্কৃতীদের গুলিতে বিজেপি কর্মীর মৃত্যুকে এবার লোকসভা নির্বাচণে অন্যতম ইস্যু বানিয়ে নিজেদের পালে হাওয়া তুলতে চাওয়ার অভিযোগ উঠল মাকদা জেলার গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে জেলার চাঁচোল মহকুমার হরিশ্চন্দ্রপুর থানার দৌলতনগরের বাসিন্দা তথা সক্রিয় বিজেপি কর্মী পাতানু মন্ডলের বাড়িতে ঢুকে তার গলায় গুলি করে নৃশংসভাবে খুন করে দুষ্কৃতীরা। শুক্রবার বিকেলে তার মৃতদেহ নিয়ে ইংরেজবাজার শহর জুড়ে মিছিল বার করা হয় জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে। মিছিলে জেলা বিজেপির সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজেপির উত্তর ও দক্ষিণ মালদা কেন্দ্রের প্রার্থী খগেন মুর্মু এবং শ্রীরূপা মিত্র।

এদিন মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিহত বিজেপি কর্মীর মৃতদেহের ময়নাতদন্ত হয়। দেহ পাওয়ার পর এদিন বিকেলেই শোক মিছিলের আয়োজন করা হয়। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের চক্রান্তে তাদের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা খুন করেছে পাতানুকে। পাতানুর দাদা উৎপল মণ্ডল স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতে বিজেপির সদস্য। খুনের পর এই এলাকায় আতঙ্কের ছায়া নেমে এসেছে। বিজেপির অভিযোগ পঞ্চায়েত ভোটের মত লোকসভা নির্বাচনের আগেও আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি করতে তৃণমূল আশ্রিত গুন্ডারা এই খুন করেছে। এরই প্রতিবাদে এদিন বিকেলে পাতানু মন্ডলের মৃতদেহ শববাহী গাড়িতে করে সারা ইংরেজবাজার শহর পরিক্রমা করে বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা। নেতৃত্বে ছিলেন বিজেপি জেলা সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র ও উত্তর মালদার বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু এবং দক্ষিণ মালদার বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র। আর এই মিছিলকে উদ্দেশ্য করেই শাসক শিবির থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছে যে, বিজেপি এই খুনের ঘটনাকে সামনে রেখে নির্বাচনী ময়দানে নিজেদের পালে হাওয়া তুলতে চাইছে।

 

যদিও বিজেপি জেলা সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছেন, ‘লোকসভা ভোটের আগে আমাদের কর্মী-সমর্থকদের ভয় দেখাতেই খুন করেছে তৃণমূল কংগ্রেসের গুন্ডাবাহিনী। কিন্তু এতে আমরা ভীত নয়। ভোটের আগে পালে হাওয়া তুলতে নয়, তৃণমূলের সন্ত্রাস সম্পর্কে মানুষকে অবহিত করতে আজ আমরা এই শোক মিছিলের আয়োজন করেছি। খুনের কত ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এর বিরুদ্ধে আমরা নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানাচ্ছি।’ যদিও তৃণমূলের তরফে এই দাবি নস্যাৎ করে পুরো ঘটনাকে ভোটের আগে নাটক বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে এই ঘটনাকে বিজেপির নিজেদের দিকে হাওয়া ঘোরানোর চেষ্টা বলে মতামত দিয়েছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের। জেলা তৃণমূলের কার্যকারী সভাপতি বাবলা সরকার বলেন, ‘এগুলো নাটক ছাড়া কিছুই নয়। নিজেদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে এই খুন হয়েছে। মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য এবং ভোটের আগে সিমপ্যাথি পাওয়ার জন্য বিজেপি এই নাটক করছে। কিন্তু মানুষ তাদের পাশে নেই। আমার বলছি পুলিশ দুষ্কৃতীদের যত শীঘ্র সম্ভব গ্রেপ্তার করুক।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here