kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, বনগাঁ ও কল্যাণী: শনিবারই ছিল প্রচারের শেষ তারিখ। শেষ দিনেই পরিকল্পনা ছিল দলের কেন্দ্রীয় নেতা তথা রাজ্যে দলের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের সঙ্গে নদিয়া জেলার কল্যাণীতে প্রচার করার। সেই মতো শনিবার সকালে ঠাকুরনগরের বাড়ি থেকে বেড়িয়ে গাড়িতে করে কল্যাণীর পথে রওয়ানাও দেন। কিন্তু গন্থব্যে পৌঁছাবার আগেই দুর্ঘটনার মুখে পড়লেন তিনি, প্রচারের বদলে সোজা চলে যেতে হল হাসপাতালে। তিনি উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুর।

জানা গিয়েছে শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ গাইঘাটা থানার হাঁসপুরে শান্তনু দুর্ঘটনায় পড়েন। কল্যাণী যাওয়ার পথে হাঁসপুরে পুলিসের স্টিকার লাগানো একটি জাইলো গাড়ি সজোরে ধাক্কা মারে শান্তনুকে। শান্তনুর সঙ্গে থাকা দলীয় কর্মীদের অভিযোগ, হাঁসপুর বাজারে প্রচার করার সময় শান্তনুকে লক্ষ্য করেই গাড়িটি ধাক্কা মারে। ঘটনাস্থলেই পড়ে যান শান্তনু ঠাকুর। তারপর তাকে তড়িঘড়ি বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছে, তার মাথায় ও হাতে চোট লেগেছে। এই ঘটনায় হাঁসপুর এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ওই জাইলো গাড়ির চালক পালিয়ে গেলেও গাড়িটিকে আটক করে স্থানীয়রা। উত্তেজিত জনতা গাড়িটিকে ভাঙচুর চালায় বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি ঘটনার জেরে বিজেপি কর্মীরা বনগাঁ রেট পাড়ার রাস্তা অবরোধও করে।

এদিকে এই ঘটনার পরেই শান্তনু ঠাকুরকে খুন করার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও সেই অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতারা। এদিকে কৈলাস বিজয়বর্গীয় একাই প্রচার সারেন কল্যাণীতে। একটি হুডখোলা গাড়িতে শতাধিক বিজেপি কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে কল্যাণীর বিভিন্ন এলাকায় প্রচার কং তিনি। এদিন কৈলাস ও শান্তনুর কল্যাণীর পাশাপাশি হরিণঘাটাতেও প্রচার করার কথা ছিল। কিন্তু শান্তনুর দুর্ঘটনার জেরে কৈলাস কল্যাণীতে প্রচার সেরেই তাকে দেখতে বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে চলে যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here