kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্য সরকার ২১ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে এক লক্ষ টাকা করে স্বাস্থ্যবীমা দিয়েছে। এই মর্মে ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফে। এদিকে এর পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির তরফ থেকেও উঠেছে প্রশ্ন। এ বিষয়ে খোদ প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বুধবার তিনি জানতে চান, ‘যদি বীমা বাবদ টাকা বরাদ্দ হয়ে থাকে, তাহলে এত আগে থেকেই কীভাবে সেই টাকা দিয়ে দেওয়া সম্ভব হল।’ একইভাবে প্রশ্ন তুলেছে অন্যান্য বিরোধী দলগুল। তারপরে বীমা প্রসঙ্গে বিরোধীদের ‘কনফিউশন’ দূর করতে বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে জারি করে রাজ্য সরকার।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত রাজ্য সরকারের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘কোভিড -১৯ প্ৰকল্পটি রাজ্য সরকার বীমা প্রকল্পের অভিযোগের জন্য এপ্রোপস একটি নিউজ আইটেমটি কেবলমাত্র কাগজে উপস্থিত রয়েছে এবং কোনও বীমা সংস্থাও এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য নিয়োজিত নেই। এখানে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে যে উক্ত বীমা প্রকল্পটি প্রথমে রাজ্য সরকার কর্তৃক অবহিত করা হয়েছিল ২১ মার্চ তারিখে এবং এখন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে ৩১ মে পর্যন্ত। আশ্বাস দেওয়ার মাধ্যমে রাজ্য সরকার বাস্তবায়ন করছে। ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত একুশ জন ব্যক্তিকে ইতিমধ্যে নিখরচায় চিকিত্সা এবং প্রত্যেকে ১-২ লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘এক চিকিৎসকের মৃত্যুর পর তাঁর পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতপূরণ সরবরাহ করা হয়েছে। উল্লিখিত প্রকল্পের আওতায় আরও ১৪টি মামলা প্রদানের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’

প্রসঙ্গত, কোভিড-১৯ এর মোকাবেলায় একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য সরকার। গঠিত হয়েছে একাধিক কমিটি। অন্যদিকে করোনা ভাইরাসের মোকাবেলায় যে সমস্ত চিকিৎসক নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা রাতদিন কাজ করে যাচ্ছেন তাদের সুরক্ষার দায়িত্ব ও নিয়েছে রাজ্য সরকার। সেই মোতাবেক এই সমস্ত চিকিৎসক নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য ব্যবস্থা করা হয় রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। একমাত্র করোনা মোকাবেলায় যে সমস্ত চিকিৎসক নার্স স্বাস্থ্য কর্মী ও হাসপাতাল কর্মীরা কাজ করছেন তারাই এই বীমার সুবিধা পাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here