kolkata bengali news

ডেস্ক: সাধের ব্রিগেড ভরাতে একটা-দুটো নয়, চার-চারটে ট্রেন ভাড়া করেছিল ভারতীয় জনতা পার্টি। এই ট্রেন ভাড়ার জন্য খরচ হয়েছে অন্তত ৫৩ লক্ষ টাকা! কিন্তু, পুরো টাকাটাই যে জলে। বিরোধী শিবিরের দাবি, বিশেষ ট্রেনের একটা কামরাও ভরাতে পারেনি মোদীর গেরুয়া বাহিনী। ইতিমধ্যেই ঝাড়গ্রাম, লালগোলা, পুরুলিয়া, রামপুরহাট থেকে ওই ট্রেন ব্রিগেডের দিকে রওনা দিয়েছে।

১৯ জানুয়ারির পর ৩ ফেব্রুয়ারি, তৃণমূল ও বামফন্ট্রের সাক্ষী রয়েছে শহরবাসী। দুটি ব্রিগেডকে তুলনায় এনে অধিকাংশ রাজনীতিবিদই ‘ভোট’ দিয়েছেন লাল’কেই। কিন্তু বিজেপির এই ব্রিগেড নিয়ে নেতা-মন্ত্রীরা কতটা আশাবাদি ছিল তার প্রমাণ দিয়েছিলেন মুকুল রায় স্বয়ং। তাঁর বক্তব্য ছিল, এ যাবৎকালের সেরা ব্রিগেড হবে ৩ এপ্রিলের ব্রিগেড। কিন্তু কোথায় কী? ৪ টি ট্রেন ভাড়া করেও ভরাতে পারল না দল। ভোর ৪টেয় ট্রেন ছাড়ার কথা থাকলেও লোকের অভাবে সময়সূচী বাতিল হল! সেই ট্রেন ছাড়া হল সকাল ৭টা নাগাদ, তাও অর্ধেক ট্রেনই ফাঁকা।

ইতিমধ্যেই, বিভিন্ন জেলা থেকে শহরে আসতে শুরু করেছেন বিজেপি সমর্থকরা। হাওড়া, শিয়ালদহ স্টেশনে ভিড় চোখে পড়েছে। তবে ৫৩ লক্ষ টাকা খরচের পর যে অস্বস্তিতে পড়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি, সেই অস্বস্তি নরেন্দ্র মোদী এসে কতটা মেটাতে পারবেন তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ইতিহাসের সাক্ষী থাকবে এই ব্রিগেড, এই আশায় বুক বাঁধছেন গেরুয়া শিবিরের সব চৌকিদাররা। তবে তা ঋণাত্মকভাবে যেন না হয়, এই আশঙ্কাও রয়েছে!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here