ডেস্ক: বিজেপির ৩৮তম প্রতিষ্ঠা দিবসে মুম্বইতে আক্রমণাত্মক মেজাজে ধরা দিলেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। রাহুল গান্ধি সহ কংগ্রেসকে রীতিমতো তুলোধোনা করে দলের কর্মীদের ২০১৯-এর প্রস্তুতি নেওয়ার জন্যও এদিন বার্তা দিলেন অমিত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয়তাকে বন্যার সঙ্গে তুলনা করে এদিন বিরোধীদের জোট বাধার কথা টেনে আনেন শাহ। অমিত এদিন বলেন, ‘সকল বিরোধীরা একজোট হতে চাইছে। যখন বন্যা আসে তখন সব গাছ ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে যায় শুধু বটগাছ দাঁড়িয়ে থাকে। সেই গাছেই নেউল, সাপ, বেড়াল আর কুকুর সবাই চড়ে। একই ভাবে মোদীর জনপ্রিয়তার বন্যায় সবাই একসঙ্গে এসেছেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে বিজেপি সভাপতি আরও বলেন যে, মোদীই এই মুহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা। বিজেপির কর্মীদের সাধারণ মানুষদের ঘরে ঘরে ঘুরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার টিপস দেন শাহ। ১১ কোটি কর্মীর জন্যই দেশের সবচেয়ে বড় দল বিজেপির, এদিনের সভায় এমন দাবিও শোনা যায় অমিতের গলায়। অমিত শাহের শুক্রবারের সভায় উঠে আসে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক প্রসঙ্গও। উরি হামলার পর সেনাবাহিনীর পালটা হামলার কথা টেনে শাহ বলেন, ভারত এমন একটি দেশ যে জঙ্গি হামলার বদলা নিয়েছে। নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বেই ইজরায়েল ও আমেরিকার পর ভারত জঙ্গি হামলার বদলা নেওয়ার তৃতীয় দেশ হয়েছে বলে জানান তিনি।

সাম্প্রতিককালে দেশ জুড়ে শুরু হওয়া দলিত আন্দোলন এবং বিক্ষোভ নিয়ে শাসকদলকে বহুবার নিশানায় নিয়েছে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি। রাহুলের গাদা-গুচ্ছেক অভিযোগের জবাব দিয়ে শাহ বলেন, ‘রাহুল বাবা বলে যে মোদী সরকার এসসি-এসটি অ্যাক্ট সরিয়ে দিয়েছে। কিন্তু বাস্তবে কোনও অ্যাক্ট সরানো হয়নি। রাহুল মিথ্যা প্রচারে ব্যস্ত। উনি এমনও বলেন, মোদী সরকার নাকি সংরক্ষণ প্রথা সরিয়ে দেবে। কিন্তু আমি সবাইকে নিশ্চিত করতে চাই এমন কিছুই হবে না।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here