Parul

মহানগর ডেস্ক: একুশে জুলাইয়ের সভামঞ্চ থেকে বিজেপি ও কেন্দ্রীয় সরকারকে একের পর এক নজিরবিহীন আক্রমণে জর্জরিত করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজের ভাষণে তিনি বিজেপি দলকে ভাইরাসের সাথে তুলনা করে একে হাইলোডেড ভাইরাস বলে আখ্যায়িত করেন। মমতার মতে ,”বিজেপি ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব করোনায় ভোটের সময় বারবার রাজ্যে ডেলি প্যাসেঞ্জারি করেছে! সময়ে করোনা না সামলিয়ে ভোটে বাইরে থেকে লোক নিয়ে এসে রাজ্যটার সর্বনাশ করে দিয়ে গেছে।” করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালীন কেন্দ্র সরকারের চূড়ান্ত অব্যবস্থাপনার জন্যও বিজেপি দল ও মোদি প্রশাসনকে কটাক্ষ করেন মমতা।

ads

এদিনের ভাষণে শুরু থেকেই তার আক্রমণের নিশানায় ছিল বিজেপি দল এবং নরেন্দ্র মোদি। মোদি সরকারকে একের পর এক অভিযোগে বিদ্ধ করে তিনি বলেন ,”আমি কোনো নেতার সঙ্গে কথা বলতে পারিনা। শরদ জি, চিদম্বরম জি, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, সাংবাদিক এমনকি বিচারপতিদের সাথেও ফোনে কোনো কথা বলতে পারি না। বিজেপি সব শুনে নেয়।” বিজেপির গোপন নজরদারির বিরুদ্ধে তাঁর বক্তব্য ‘বিজেপি আপনার ব্রেন টাকেও স্ক্যান করে নিচ্ছে। আমার সব অডিও শুনে নেয় বলে আমি আমার ফোনের পেছনটা প্লাস্টার করে নিয়েছি। এই সরকারকেও প্লাস্টার করার প্রয়োজন আছে।”

উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ ও কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদি কোভিড পরিস্থিতি সামলাতে পারে নি এই অভিযোগ তুলে মমতা বলেন, “মরে গেলে গঙ্গার জলে লাশ ভাসিয়ে দেয়। সেই রাজ্য নাকি বেস্ট স্টেট? প্রধানমন্ত্রী এমন কথা বলেন কি করে? লজ্জা লাগে না?”
বাংলার প্রশংসা করে মমতার বক্তব্য, “আমাদের রাজ্যে যেসব বডি ভেসে এসেছে আমরা তাদের সৎকার করেছি। আপনারা তো মৃতদের একটা ‘ডিগনিফাইড ডেথ’ ও দিতে পারেন নি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here