নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: ভাটপাড়ায় রামনবমীর মিছিলে গুলি করে খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার হলেন ভাটপাড়ার এক বিজেপি নেতা। ধৃতের নাম প্রিয়াংগু পাণ্ডে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ভাটপাড়ার বিজেপি যুবমোর্চার নেতা প্রিয়াংগুকে কলকাতা থেকে মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার করে জগদ্দল থানার পুলিশ। ধৃত প্রিয়াংগুর বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় খুনের মামলা রুজু হয়েছে। ধৃতকে বুধবার ব্যারাকপুর আদালতে তোলা হলে বিচারপতি ধৃতকে ৫ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ শে মার্চ ভাটপাড়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের আয়োজিত রামনবমীর মিছিলে গুলি চলার চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে। সেই সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে খুন হন কাকিনাড়ার স্থানীয় বাসিন্দা মকসুদ খান। ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে সেই সময় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল রাজ্য রাজনীতি। গুলি চালানোর ঘটনার তদন্ত শুরু করেছিল জগদ্দল থানার পুলিশ। অবশেষে রামনবমীর মিছিলে গুলি করে মকসুদ খানকে খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয় বিজেপি নেতা প্রিয়াংশু পাণ্ডেকে। বুধবার দুপুরে জগদ্দল থানার পুলিশ অভিযুক্ত প্রিয়াংগুকে ব্যারাকপুর আদালতের কোর্ট লকআপে নিয়ে আসে। অভিযুক্ত বিজেপি যুব মোর্চা নেতা প্রিয়াংগু পান্ডে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি। আমি ওই দিন গুলি চালাই নি। যেখানে গুলি চলেছে ওই ঘটনাস্থলে আমি ছিলামই না। আমার একটু নাম হচ্ছে বিজেপি করে, তাতে শাসকদল ভয় পেয়েছে। আমাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে ফাঁসানো হয়েছে।’

ব্যারাকপুর আদালতে প্রিয়াংগুকে নিয়ে আসার সময় তার অনুগামীরা বুধবার দুপুরে কোর্ট লকআপের সামনে বিক্ষোভ দেখায়। পরে বিক্ষোভকারী ওই বিজেপি কর্মীদের কোর্ট চত্বর থেকে হটিয়ে দেয় পুলিশ। এদিকে খুনের দায়ে অভিযুক্ত প্রিয়াংগুকে বুধবার দুপুরের পর বারাকপুর আদালতে বিচারকের সামনে হাজির করানো হলে বিচারক ওই বিজেপি নেতাকে ৫ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here