পড়ুয়ারা নয়, বহিরাগতরা আক্রমণ করেছে বাবুলকে! বিস্ফোরক মুকুল, বিঁধলেন শিক্ষামন্ত্রীকেও

0
481
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে এবিভিপি আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে চরম হেনস্থার শিকার হন রাজ্যের বিজেপি সাংসদ ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। ঘিরে ধরে দেখানো হয় বিক্ষোভ, ছিঁড়ে দেওয়া হয় জামাও। পাশাপাশি অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে শারীরিক হেনস্থার অভিযোগও উঠেছে। এই বিষয়কে কেন্দ্র করে বঙ্গের রাজনৈতিক চিত্র তোলপাড়। বাবুলরে হেনস্থার বিষয় এবার মুখ খুললেন বঙ্গ বিজেপি নেতা মুকুল রায়। তাঁর অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের নয়, আক্রমণের ঘটনা ঘটিয়েছে বহিরাগতরা।

এদিন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে রাজভবনে দেখা করতে যান মুকুল রায়, তাঁর সঙ্গে ছিলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। রাজভবন থেকে বেরিয়ে বলেন, আচার্য হিসেবে গতকাল রাজ্যপাল যে সাহস দেখিয়েছেন তাকে কুর্নিশ। এটা বিশাল বড় ব্যাপার। তবে একটা কথা, কাল যখন রাজ্যপাল বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলেন তখন সেখানে সিপি নেই, ডিজিও নেই। যাদবপুরের ঘটনা যারা ঘটিয়েছেন তারা কেউই ছাত্রা বা ছাত্রী নন, তারা বহিরাগত। এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন মুকুল।

পাশাপাশি রাজ্য সরকারকে কাঠগড়ায় তুলে মুকুলের বক্তব্য, ‘বাবুলকে যেভাবে হেনস্থা করা হয়েছে তা গণতন্ত্রের পক্ষে লজ্জাজনক। বাংলায় যে গণতন্ত্র নেই এবং আইনশৃঙ্খলা নেই তাই প্রমাণিত। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গায় হেনস্থার শিকার হচ্ছেন, তাঁকে উদ্ধার করতে রাজ্যপাল যাচ্ছেন কিন্তু রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী যেতে পারছেন না। এটা লজ্জার।’

উল্লেখ্য, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে নবীনবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল এবিভিপি। সেই অনুষ্ঠানেই সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে যোগ দিতে আসেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে পা দেওয়া মাত্রই উত্তেজনা ছড়ায় ব্যাপকভাবে। বিরোধী গোষ্ঠীর একদল পড়ুয়া তাঁকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয় যে, বাবুলকে রক্ষণের মধ্যে নিয়েও কোনও লাভ হয়নি। ধাক্কা মারা থেকে শুরু করে জামা ছেঁড়া, চরমভাবে হেনস্থার শিকার হন তিনি। তাঁর পাশাপাশি হেনস্থা করা হয় অগ্নিমিত্রা পলকেও। তিনি যাদবপুর থানায় গোটা ঘটনা নিয়ে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন ইতিমধ্যেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here