মহানগর ডেস্ক: এবার আরও বড়সড় আকার নিল কর্ণাটকের প্রাক্তন জলসম্পদ মন্ত্রী রমেশ জারকিহোলির যৌন কেলেঙ্কারির সিডি বিতর্ক। যে মহিলাকে সরকারি চাকরির টোপ দিয়ে যৌন কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছিলেন বিজেপির প্রাক্তন মন্ত্রী, সেই নির্যাতিতা মহিলা এবার কর্ণাটক হাইকোর্টের মুখ্য বিচারপতিকে চিঠি লিখে আরও গুরুতর অভিযোগ সামনে নিয়ে এলেন প্রাক্তন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে। নির্যাতিতাকে প্রাণে মেরে ফেলতে পারেন রমেশ জারকিহোলি, এই আশঙ্কা করে নির্যাতিতা লেখেন, ‘রমেশ জারকিহোলির অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তি, মামলা তুলে নেওয়ার জন্য এর আগেও বহুবার জনসম্মুখে হুমকি দিয়েছে আমাকে। বর্তমানে আমার পরিবার অত্যন্ত আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।’ পাশাপাশি তাঁকে ও তাঁর পরিবারকে নিরাপত্তা দেওয়ার আবেদনও জানান নির্যাতিতা।

গত শনিবারই অন্য একটি ভিডিও প্রকাশ করে নির্যাতিতা দাবি করেন যে তাঁর পরিবারের উপর যে কোনও সময় আক্রমণ করতে পারেন অভিযুক্ত মন্ত্রীর অনুগামীরা। এদিনও বিচারপতিকে চিঠি লিখে একই অভিযোগ করেন ওই মহিলা। তিনি অভিযোগ করেন যে এই মামলার তদন্তকারী আধিকারিকদের তাঁর আশঙ্কার কথা এর আগে বহুবার জানালেও তাঁর পরিবারের নিরাপত্তার জন্য কোনও ব্যবস্থা এখনও পর্যন্ত গ্রহণ করা হয়নি। পাশাপাশি অভিযুক্ত মন্ত্রী যাতে এই মামলাকে কোনওভাবে প্রভাবিত করতে না পারেন, সেই বিষয়ে নজর দেওয়ার জন্য বিচারপতির কাছে আর্জি জানিয়েছেন নির্যাতিতা।

এদিকে যৌন কেলেঙ্কারির ইস্যুতে এদিন বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ শানালেন কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারমাইয়া। কর্ণাটকের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পাকে বিঁধে তিনি টুইটারে লেখেন, ‘নির্যাতিতাকে হুমকির মুখে পড়ে আদালতের বিচারপতিকে চিঠি লিখতে হচ্ছে! আপনার সরকার কি আদেও ঠিকমতো কাজ করছে ?’ পাশাপাশি এই মামলার তদন্তকারী আধিকারিকরা সরকারের সঙ্গে জোট বেঁধে মামলার প্রমান লোপাট করে দিতে পারে সেই আশঙ্কাও করেন তিনি।

প্রসঙ্গত মার্চের গোড়ার দিকে এক তরুণীকে সরকারি চাকরির দেওয়ার নাম করে যৌন হেনস্থা করার অভিযোগ ওঠে তৎকালীন জলসম্পদ মন্ত্রী রমেশ জারকিহোলির বিরুদ্ধে। কর্ণাটকের এক সমাজকর্মী মন্ত্রীর এই যৌন কেলেঙ্কারির ভিডিও ফাঁস করতেই তোলপাড় শুরু হয় রাজ্য রাজনীতি জুড়ে। জারকিহোলির বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পর তাঁকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করে বিজেপি নেতৃত্ব। পরবর্তীতে ওই মহিলা নিজে অভিযোগ করেন থানায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here