এক মহিলার জন্য তো এখানে দাঁড়িয়ে! সনিয়াকে টেনে অধীরকে বিঁধলেন গেরুয়া সাংসদ

0
national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গুজরাটে ঘর থাকা সত্ত্বেও দিল্লিতে বসবাস করছেন, তাই তারাও একপ্রকার উদ্বাস্তু। লোকসভায় দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলে দেগে দিয়েছিলেন কংগ্রেস সাংসদ ও বিরোধী নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এবার তাঁকে পাল্টা দিলেন উত্তর-মধ্যের বিজেপি সাংসদ পুনম মহাজন। নাম না করে কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর প্রসঙ্গে অধীরকে বাক্যবাণে বিদ্ধ করলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে অধীর যা মন্তব্য করেছেন তার তীব্র বিরোধীতা করে পুনম বলেন, ‘যাঁর নামের মধ্যেই ধীর রয়েছে, সেই অধীররঞ্জন চৌধুরীর ধৈর্যের বাঁধ ভেঙেছে। এক পরিবারের একজন মহিলার জন্য তো উনি এখানে দাঁড়িয়ে আছেন। তাঁরই সম্মান ও সুরক্ষার জন্য লড়াই করছেন। তাঁর এই কথা বলা সাজে না।’ প্রসঙ্গত, শুধু মোদী-শাহ নয়, অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণকেও ‘নির্বলা’ বলে কটাক্ষ করেন অধীর। তাঁর এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতেই পুনম ঘুরিয়ে অধীরকেই ‘নির্বল’ বলে তোপ দাগেন।

গোটা দেশে এনআরসি লাগু করে অনুপ্রবেশকারীদের তাড়ানোর ‘হুমকি’ দিয়ে রেখেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এর প্রতিবাদ করতে গিয়েই তাঁকে ও প্রধানমন্ত্রীকে ‘অনুপ্রবেশকারী’ ও ‘উদ্বাস্তু’ বলেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। ব্যাখ্যা দিয়ে বহরমপুরের সাংসদ বলেন, ওদের গুজরাটে ঘর আছে, তাও তাঁরা দিল্লিতে থাকেন। তাই তাঁরা একপ্রকার অনুপ্রবেশকারীই। প্রসঙ্গত, রাজ্যসভায় অমিত শাহ লাগাতার এনআরসি নিয়ে চাপ বাড়ানোর কারণেই অধীর চৌধুরী এই বক্তব্য দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। অমিত শাহের বক্তব্য ছিল, একটি সম্প্রদায় বাদে আর কোনও সম্প্রদায়ের ভয় পাওয়া কোনও কারণ নেই। তবে অসমে এনআর সি করতে গিয়েই কেন্দ্রীয় সরকার যেভাবে বিপাকে পড়েছে, এরপর দেশের অন্যান্য রাজ্যে বিষয়টি নিয়ে কল্পনা করলেও কতটা বিপাকে পড়তে হবে সেটাই ভাবাচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here