ডেস্ক: দেশভাগের প্রধান কাণ্ডারি মহম্মদ আলি জিন্নাকে নিয়ে এই সময় সরগরম জাতীয় রাজনীতি। আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর ছবি কেন থাকবে, এই নিয়ে শুরু হওয়া বিতর্ক এখনও থামার নাম নেয়নি। ইন্টারনেট বন্ধ করা থেকে শুরু করে ১৪৪ ধারা লাগু। কিছুই করতে বাদ রাখেনি কিন্তু প্রশাসন। কিন্তু এরই মধ্যে নতুন করে জিন্নাকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন বিজেপি সাংসদ সাবিত্রী বাইফুলে। তাঁর দাবি, মহম্মদ আলি জিন্না একজন মহাপুরুষ ছিলেন এবং সর্বদা থাকবেন। সাবিত্রী আরও বলেন, এরম মহাপুরুষদের ছবি প্রত্যেক জায়গায় লাগানো দরকার।

দিনকয়েক আগেই এই নিয়ে পটনার বিজেপি সাংসদ শত্রুঘ্ন সিনহাও বিস্ফোরক উক্তি করেছিলেন। তিনি বলেন, ‘এতদিন যখন ছবি ওখানে রাখা ছিল সব ঠিকই চলছিল। আচমকা সেসব ছবি সরানোর দাবি করার মানে টা কী?’ সব মিলিয়ে আলিগড়ে জিন্নার ছবি রাখা নিয়ে বিতর্কে এখনও তুঙ্গে। এর মাঝেই বিতর্কে ঘি ঢালার কাজ করে দিলেন উত্তরপ্রদেশের সাংসদ বাইফুলে।

এই সাংসদ সংবাদ মাধ্যমে আরও জানান, স্বাধীনতার লড়াইয়ে বিরাট যোগদান ছিল জিন্নার। তাই তিনি যে কোন সাধারণ মানুষ নয়, বরং মহাপুরুষ ছিলেন। ছবি থাকা নিয়ে বিতর্ক হলেও জিন্নার ছবি সর্বত্র লাগানোর পক্ষেই রয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত, দিনকয়েক আগেই জিন্নার ছবি ঘিরে তৈরি হওয়া অশান্তি আটকাতে গোটা এলাকায় জারি করা হয় ১৪৪ ধারা। অন্যদিকে, মহম্মদ আলি জিন্নার বিতর্কিত ছবি জ্বালিয়ে দিলে ১ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করে অল ইন্ডিয়া মুসলিম মহাসংঘ। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে জিন্নার এই মামলা সমর্থনকারীদের বিরুদ্ধে সাংবাদিক পেটানো সহ মারধোরের অভিযোগও ওঠে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here