বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে বিধ্বংসী আগুন, অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে

0
33

নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: মাঝরাতে আগুনে ভস্মীভূত হয়ে বিজেপির দলীয় কার্যালয়। মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহরে। পুলিশ জানায়, এই অগ্নিকাণ্ডে হতাহাতের কোনও ঘটনা ঘটেনি। তবে মাঝরাতে বন্ধ দলীয় কার্যালয়টিতে কীভাবে আগুন লাগল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। শাসকদলের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। যদিও তৃণমূল অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বীজপুর থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, হালিশহরের ঝিলপাড় জেঠিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে ছিল বিজেপির দলীয় কার্যালয়টি। মাঝরাতে স্থানীয় বাসিন্দারাই প্রথমে ওই কার্যালয়টির ভিতর থেকে কালো ধোঁয়া বেরোতে দেখেন। সঙ্গে সঙ্গে খবর পৌঁছয় স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের কাছে। বীজপুর থানাতেও খবর দেওয়া হয়। তারপর বীজপুর থানার পুলিশ ও দমকল বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এই অগ্নিকাণ্ডে বিশেষ কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। দমকল বাহিনী ঠিক সময়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যাওয়ায় আগুন ছড়ায়নি। কারোর প্রাণহানিও হয়নি। তবে মাঝরাতে বন্ধ পার্টি অফিসে আগুন লাগার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

দলীয় কার্যালয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে স্থানীয় বিজেপি নেতা তথা কাউন্সিলর গনেশ দাস বলেন, ‘তৃণমূল কাউন্সিলর ছবি দাস এই পার্টি অফিস দখল করার চেষ্টা করেও পারেননি। তাই এটি জ্বালিয়ে দিলেন। তাঁদের এক কর্মীকে ফাঁসানোর চক্রান্ত চলছেও বলেও দাবি গনেশ দাসের। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল কাউন্সিলর ছবি দাস বলেন, সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন। তৃণমূল কংগ্রেসকে বদনাম করার জন্য এরকম বলছেন। একইসঙ্গে তৃণমূল কর্মীরা বিজেপির উপর কোনও হামলা চালায়নি দাবি জানিয়ে ছবি দাসের পাল্টা অভিযোগ, বিজেপি কর্মীরা আমার স্বামী রতন দাসকে মারধর করেছে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here