ডেস্ক: নজিরবিহীনভাবে প্রথমবার পশ্চিমবঙ্গে সাত দফায় লোকসভা নির্বাচনের কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল আরোরা। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে বিতর্ক। বেশ কিছু রাজ্যে এক দফায় ভোট হলেও বাংলায় কেন সাত দফায় ভোট? এই নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। তবে বলাই বাহুল্য, কমিশনের এই সিদ্ধান্তে বেজায় খুশি বিজেপি। একেবারে মন মতো নির্ঘন্ট পেয়েছে তারা। এটাই তো দাবি ছিল এতো দিন ধরে।

কমিশনের এই ঘোষণায় স্বভাবতই খুশি হয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রাজ্যে আইন শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে বলে জানান তিনি। দিলীপ বলেন, সমস্ত জায়গায় কেন্দ্রীয় বাহিনী দিতে হবে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জন্যই রাজ্যে সাত দফায় ভোট।

অন্যদিকে বিজেপি কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা সাংবাদিক ডেকে বলেন, বাংলায় অরাজকতার রাজনীতি চলছে। তা এই ঘোষণার মাধ্যমেই স্পষ্ট। এখানে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হয় না। পঞ্চায়েতেও হয়নি। এখানে যে গণতান্ত্রিক ভাবে ভোট হয় না তা বিভিন্ন দল নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছে। এবং কমিশনও সেই কথা বুঝেছে। এই রাজ্যের প্রশাসনের উপর যে কমিশনের কোনও বিশ্বাস নেই। অধিক পরিমাণে কেন্দ্রীয় সেনা মোতায়েন করতে চান তারা। তা এই ঘোষণার মাধ্যমে জানিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নাম না করে অনুব্রত মণ্ডলকে কটাক্ষ করে রাহুল বলেন, এবার আপনাদের পাঁচন নেওয়ার সময়। সাত দফায় তৃণমূলের দফা রফা হয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত, এদিন নয়াদিল্লিতে সপ্তদেশ লোকসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। দেখে নিন এবারের লোকসভা নির্বাচনের সম্পূর্ণ নির্ঘন্ট…

প্রথম দফা- ১১ এপ্রিল- ২০টি রাজ্যের ৯১টি লোকসভা আসনে।

নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে অন্ধ্রপ্রদেশের ২৫টি, অরুণাচল প্রদেশের ২টি, অসমের ৫টি, বিহারের ৪টি, চণ্ডিগড়ের ১টি, জম্মু কাশ্মীরে ২টি, মহারাষ্ট্রে ৭টি, মণিপুরে ১ট, মেঘালয়ে ২টি, মিজোরামের ১, নাগাল্যান্ডের ১টি, ওড়িশার ৪টি, সিকিমের ১টি ও তেলেঙ্গানার ১৭টি আসনে

দ্বিতীয় দফা- ১৮ এপ্রিল- ১৩টি রাজ্যের ৯৭টি লোকসভা কেন্দ্র।

নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে অসমের ৫টি, বিহারের ৬টি, ছত্তিশগড়ের ৩টি, জম্মু কাশ্মীর ২টি, কর্নাটকের ১৪টি, মহারাষ্ট্র ১০টি, মনিপুর ১টি, ওড়িশা ৫টি, তামিলনাড়ু ৩৬টি, ত্রিপুরা ১টি, উত্তরপ্রদেশ ৮টি, পশ্চিমবঙ্গ ৩টি ও পদুচেরি ৩টি আসনে।

তৃতীয় দফা- ২৩ এপ্রিল- ১৪ রাজ্যের ১১৫টি লোকসভা।

নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে অসমের ৪টি, বিহারের ৫টি, ছত্তিশগড়ে ৭টি, গুজরাত ২৬টি, গোয়ার ২টি, জম্মু কাশ্মীরে ১টি, কর্ণাটক ১৪টি, কেরলে ২০টি, মহারাষ্ট্রে ১৪টি, ওড়িশায় ৬টি, উত্তরপ্রদেশের ১০টি, পশ্চিমবঙ্গের ৫টি, দাদরা দমন দিউর ২টি আসনে।

চতুর্থ দফা- ২৯ এপ্রিল- ৯টি রাজ্যের ৭১টি লোকসভা কেন্দ্র।

বিহার ৫, জম্মু কাশ্মীর ১, ঝাড়খন্ড ৩, মধ্যপ্রদেশ ৬, মহারাষ্ট্র ১৭, ওড়িশা ৬, রাজস্থান ১৩, উত্তরপ্রদেশ ১৩টি, পশ্চিমবঙ্গের ৮টি আসনে।

পঞ্চম দফা- ৬ মে- ৭ রাজ্যের ৫১টি লোকসভা আসনে।

বিহার ৫, জম্মু কাশ্মীর ২, ঝার ৪, মধ্যপ্রদেশ ৭, রাজস্থান ১২, উত্তরপ্রদেশ ১৪, পশ্চিমবঙ্গে ৭।

ষষ্ঠ দফা- ১২ মে- ৭ রাজ্যের ৫৯টি লোকসভা কেন্দ্রে।

বিহার ৮, হরিয়ানা ১০, ঝারখণ্ড ৪, মধ্যপ্রদেশ ৮, উত্তরপ্রদেশ ১৪, পশ্চিমবঙ্গ ৮, দিল্লি ৭।

সপ্তম দফা- ১৯ মে- ৮টি রাজ্যের ৫৯টি লোকসভা কেন্দ্রে।

বিহার ৮, ঝারখণ্ড ৩, মধ্যপ্রদেশ ৮, পঞ্জাব ১৩, পশ্চিমবঙ্গে ৯, চণ্ডীগড় ১, উত্তরপ্রদেশ ১৩, হিমাচলপ্রদেশ ৪।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here