ডেস্ক: এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে রেকর্ডের ছড়াছড়ি৷ শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতায় জয় থেকে শুরু করে বামেদের নিশ্চিহ্ন হওয়া, বিজেপির উত্থান, লাগামহীন সন্ত্রাস কিংবা মৃত্যু মিছিল, অতীতের সব রেকর্ডকে ম্লান করে দিয়েছে এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচন৷ গণনা কেন্দ্রের মধ্যে ছাপ্পা দেওয়ার ঘটনা বাম জমানার রিগিংকেও হার মানিয়েছে৷ এই সবকিছুর মধ্যে আরও এক নজিরবিহীন ঘটনা৷ পুননির্বাচনে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের হার৷ যা কিন্তু অনেক প্রশ্ন তুলে দিয়ে গেল৷ প্রশ্নচিহ্ন দেখা দিল, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের জয়ের তত্ত্বের উপরেও৷

গত ১৪ মে পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর ১৭মে ভোট গণনায় এগিয়ে ছিলেন তৃণমূল প্রার্থী। আর গণনার দিন ব্যালট ছিনতাইয়ে ঘটনায় পুনর্নিবাচনে ফলাফল পুরো উল্টে গেল৷ পুনর্নির্বাচনে জয়ী হলেন বিজেপি প্রার্থী। জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জ ব্লকের ফুলবাড়ি এক নম্বর ব্লকের ১৮৯/১ ও ১৮৯/২ নম্বর বুথে গ্রাম পঞ্চায়েতের পুনর্নির্বাচন ছিল রবিবার৷ সোমবার ফলাফল ঘোষণার পর দেখা যায় তৃণমূল প্রার্থী সুপ্রিয়া বিশ্বাসকে হারিয়ে জয়ী হলেন বিজেপি প্রার্থী ডলি সুত্রধর। তৃণমূল প্রার্থীকে ২১৬ ভোটে হারিয়েছেন বিজেপি প্রার্থী৷

বিজেপির এই জয়ে প্রমাণ করে দিল, তৃণমূল প্রার্থীর নিশ্চিত হার জেনেই ব্যালট পেপার ছিনতাই করা হয়েছল ওই দিন। ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের ঘটনায় অভিযোগের আঙুল উঠেছিল তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে। এরপর নির্বাচন কমিশন ওই দুটি বুথে পুনরায় নির্বাচনের নির্দেশ দিয়েছিল৷ সেইমতো রবিবার দুটি বুথে কড়া নিরাপত্তায় ফের ভোট গ্রহণ করা হয়। কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়েই সোমবার ফল ঘোষণা করা হয়৷ সেখানে শেষ হাসি হাসেন বিজেপি প্রার্থী৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here