মহানগর ডেস্কঃ গত দুই দিনে হাসপাতালে ভর্তি ছ’জন রোগী। তাদের দেহে বাসা বেঁধেছে কালো ছত্রাক। ডাক্তারি পরিভাষায় যার নাম মিউকোরমাইকোসিস (Mucormycisis) বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাস। দিল্লির স্যার গঙ্গারাম হাসপাতালে প্রবেশ করেছে এই কালো ছত্রাক। এর ফলে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। গত বছরেও দেখা গিয়েছিল ব্ল্যাক ফাঙ্গাস।

সংবাদমাধ্যমে হাসপাতালের এক সার্জেন বলেছেন, “গত বছরও এই প্রাণঘাতী সংক্রমণের কারণে বহু রোগীর মৃত্যু হয়েছিল। অনেক রোগীর দৃষ্টিশক্তি চলে গিয়েছিল কিংবা নাক ও চোয়াল অস্ত্রোপচার করে বাদ দিতে হয়েছিল।” গতবারের তুলনায় এবারের পরিস্থিতি আরও খারাপ। কিছু দিন আগে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিল স্যার গঙ্গারাম হাসপাতাল। অক্সিজেন সংকটে ভুগছিল রাজধানী শহরের হাসপাতালটি। করোনা ভাইরাসের পাশাপাশি চিকিৎসকদের এবার লড়াই চালাতে হবে এই মারণ ছত্রাকের বিরুদ্ধেও।

নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া, চোখ বা গাল ফুলে যাওয়া, নাকে গালে শক্ত স্তর তৈরি হওয়ার মতো প্রাথমিক কিছু উপসর্গ রয়েছে সংক্রমণের। কিন্তু কীভাবে ছড়িয়ে পড়ছে এই সংক্রমণ? মূলত যারা দীর্ঘ দিন আইসিইউতে রয়েছেন, দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম এরকম ব্যক্তির দেহে ছত্রাকের সংক্রমণ দেখা যেতে পারে। ‘করোনা রোগীদের চিকিৎসায় অনেক সময় স্টেরয়েড ব্যবহার করা হচ্ছে। কারও কারও দেহে মধুমেহ রয়েছে। ফলে বাসা বাঁধছে কালো ছত্রাক।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here