প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে চলছিল বাজি কারখানা, বিস্ফোরণে দগ্ধ দম্পতি

0
395
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, কেশপুর: ফের অবৈধ বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ।ঝলসে গেল দম্পতি। নিজেদের বসতবাড়ির সঙ্গেই অবৈধ বাজি তৈরীর কারখানাটি রেখেছিলেন ওই দম্পতি৷ রবিবার বিকেলে বাড়ির রান্নার গ্যাস ওভেন থেকে আগুন ছড়িয়ে বাড়িতে মজুত  বাজিতে আগুন লাগে৷ তা থেকেই বিস্ফোরণের ঘটনা৷ গ্রামবাসীরা দম্পতিকে উদ্ধার করে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে, পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের কলকাতায় রেফার করা হয়৷ ঘটনাটি ঘটেছে কেশপুর থানার ঘোষডিহা গ্রামে৷

গ্রামের বাসিন্দা হারাধন গায়েন নিজের বাড়িতেই বাজি তৈরী করতেন অবৈধ ভাবে৷ গ্রামবাসীদের নিষেধাজ্ঞা সত্বেও এই বাজির তৈরীর কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল৷ রবিবার বিকেলে তাঁর বাড়িতে রান্নার গ্যাস থেকে কোনোভাবে আগুন ছড়িয়ে গিয়েছিল৷ সেই আগুন গিয়ে বাড়ির মধ্যে মজুত রাখা বারুদে লেগে যায়৷ তা থেকেই বিস্ফোরণ  হয় পরপর৷ বাড়ি থেকে বের হওয়ার সুযোগ দেয়নি হারাধন বাবু ও তাঁর স্ত্রী অর্চনা গায়েন কে৷ বাড়িতে পরপর বিস্ফোরণ ঘটতে থাকে মজুদ বোমাগুলি থেকে৷ গ্রামবাসীরা দ্রুত এসে কোনোভাবে ওই দম্পতিকে উদ্ধার করে প্রথমে কেশপুর হাসপাতালে ভর্তি করে৷ পরে সেখান থেকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে৷ সন্ধ্যা নাগাদ অবস্থার অবমনতি হওয়ায় তাদের কলকাতায় রেফার করা হয়৷ ঘটনার পরে গ্রামবাসীরা অনেক চেষ্টা করে আগুন নিভিয়েছে৷ ঘটনাস্থলে হাজির হয় কেশপুর থানার পুলিশ৷

জেলার পিংলার ব্রাম্ভনবাড় গ্রামে বাজি কারখানাতে বিস্ফোরনে গত তিনবছর আগে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল৷ রাজ্য তোলপাড় করা সেই অবৈধ বাজি কারখানার বিস্ফোরনের ঘটনার পরে পুলিশ প্রশাসন সক্রিয় হয়েছিল৷ তারপরও জেলার নারায়নগড় সহ মকরামপুর এলাকাতে বাজিকারখানায় বিস্ফোরনের ঘটনা ঘটেছে৷ হয়েছে খোদ মেদিনীপুর শহরেও৷ এবার কেশপুরের ঘটনায় ফের পুলিশি  উদাসীনতার অভিযোগ উঠে আসছে ৷

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here