kolkata bengali news

Highlights

  • মণ্ডপ জুড়ে সমাজসেবার সেবার বার্তা
  • অ্যাম্বুলেন্স চালক দাদাকে দেখেই অনুপ্রেরণা
  • উৎসাহে এগিয়ে এলেন প্রতিবেশীরাও

নিজস্ব প্রতিবেদক, দার্জিলিং: রক্তদানের মধ্যে দিয়ে জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করল নবদম্পতি। পাশাপাশি বৌভাতের খাওয়া দাওয়ার প্যাণ্ডেল জুড়ে রয়েছে সমাজসেবার বার্তা। নিজের বৌভাতের অনুষ্ঠানে এমনই নজির গড়লেন শিলিগুড়ির অন্যতম সমাজসেবী রাকেশ দত্ত ও তার স্ত্রী শ্রাবনী দাস। সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে শিলিগুড়ির ভলেন্টিয়ার ব্লাড ডোনার্স ফোরাম।

প্রেরণা ছিল অ্যাম্বুলেন্স দাদা করিমুল হক। সেই অনুপ্রেরণাকে সঙ্গে এনিয়েই নিজেকে একটু অন্যভাবে সমাজসেবার মধ্যে নিয়োজিত করল শিলিগুড়ি ঘোঘমালির যুবক রাকেশ দত্ত। এরপরই গড়ে তুললেন সেচ্ছাসেবী সংগঠন শিলিগুড়ি ইউনিক সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি। বর্তমানে দুঃস্থ মানুষদের পাশে থাকতে সর্বদাই আলাদা রকম কাজ করে চলছে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। তবে এবার নিজের বৌভাতের অনুষ্ঠানেও আলাদা কিছু করে সমাজসেবার বার্তা দিলেন এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সম্পাদক রাকেশ দত্ত।

তাঁর এই উদ্যোগে এগিয়ে এসেছে টিমের সকল সদস্যরা। বৌভাতের খাওয়া-দাওয়ার মণ্ডপ জুড়ে রয়েছে সমাজসেবার বার্তা। শুধু তাই নয় জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করার আগে এদিন শিলিগুড়ি ইউনিক সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির ব্যবস্থাপনায় এক রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়। এই শিবিরে টিমের সদস্যরাতো বটেই রক্ত দিতে এগিয়ে এল রাকেশের প্রতিবেশীরা। এদিন রাকেশের এই উদ্যোগকে যথেষ্ট সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসী থেকে শুরু করে শহরের বিভিন্ন বয়সের মানুষ জন। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে শিলিগুড়ি ভলেন্টিয়ার ব্লাড ডোনার্স ফোরাম। রাকেশের এই উদ্যোগ এবং তার সমাজসেবা মূলক কাজকে সমর্থন জানিয়েছেন তার সদ্য বিবাহিত স্ত্রী শ্রাবণী।

অন্যদিকে রাকেশের এই ধরনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন শিলিগুড়ি ইউনিক সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সভাপতি সীমা শেঠিয়া। তিনি আরো জানিয়েছেন তাদের এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সর্বদাই দরিদ্র ও দুঃস্থ মানুষদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়, তাই এই ধরনের উদ্যোগ যথেষ্টই সমাজের রক্ত সংকট দূর করতে সহায়ক হবে।

এদিন এলাকার পুরুষ ও মহিলা মিলে মিলিয়ে মোট ২০ জন রক্তদান করেন। জানা গিয়েছে, এই শিবির থেকে সংগৃহীত রক্ত গুলিকে পাঠানো হবে শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে ব্লাড ব্যাংকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here