রক্তাক্ত ১৬ আগস্ট: কালা দিবস স্মরণে রক্তদান শিবির পুরুলিয়ায়

0
39

নিজস্ব প্রতিবেদন, পুরুলিয়া: ১৯৮০ সালের ১৬ আগস্ট। তখনও তৈরি হয়নি যুবভারতী স্টেডিয়াম। ফলে ইস্ট-মোহন বড় ম্যাচ হতো ক্রিকেটের মক্কা ইডেন গার্ডেন্সে। সেবার ইস্টবেঙ্গলের নেতৃত্বে ছিলেন সত্যজিৎ মিত্র ও মোহনবাগানের দলপতি কম্পটন দত্ত। ম্যাচের ১১ মিনিট নাগাদ বাগানের বিদেশ বসুকে বিশ্রী ট্যাকল করেন লাল-হলুদের দিলীপ পালিত। কিন্তু অদ্ভুতভাবে ফাউল দেননি রেফারি। সেই নিয়েই গ্যালারিতে অশান্তির ধিকিধিকি আগুন জ্বলা শুরু।

এর ঠিক মিনিট ১২ মিনিট পর দিলীপ পালিতকে পাল্টা মারেন বিদেশ বসু। কিন্তু এবার রেফারি তাঁকে রেড কার্ড দেখান। পরে অবশ্য ইস্টবেঙ্গলের ডিফেন্ডারকেও লাল কার্ড দেখানো হয়। কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে বচসা খুব অল্প সময়েই হাতাহাতিতে পৌঁছে যায়। কয়েকজন উপরের স্ট্যান্ড থেকে নীচের স্ট্যান্ডে পড়ে যান। প্রবল হুলস্থূলের মধ্যে পদপিষ্ট হয়ে মারা যান ১৬ জন ফুটবলপ্রেমী। বাংলার ফুটবল ইতিহাসে কালো দিবস হিসেবে পরিণত হয় ১৬ আগস্ট।

সেই কালা দিবস উপলক্ষ্যে পুরুলিয়া টাউন ক্লাবের উদ্যোগে ১৬টি মোমবাতি জ্বেলে, রক্ত দান শিবিরের মাধ্যমে এই দিনটিকে স্মরণ করা হয়। টাউন ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রলয় দাশগুপ্ত বলেন,

‘আজকে ফুটবলপ্রেমী দিবসে ক্রীড়াপাগল মানুষদের একটা বার্তাই দিতে চাই, খেলা ঘিরে উত্তজনা থাকতেই পারে। কিন্তু ১৯৮০ সালের খেলাকে ঘিরে যে ঘটনা ঘটেছিল তার যেন পুনরাবৃত্তি আর না হয়।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here