ফের বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কেষ্টর গড়, বোমায় উড়ে গেল তৃণমূল নেতার বাড়ি

0
154

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিউড়ি: ফের বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কেষ্টর গড়। শনিবার ভর দুপুরে বিস্ফোরণে উড়ে গেল তৃণমূল নেতার বাড়ি। পুলিশের ব্যাপক ধরপাকড়েও বীরভূম জেলা যে এখনও দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য তা আবারও প্রমাণিত হল। যদিও বিস্ফোরণে হতাহতের কোনও খবর নেই। অভিযুক্ত বাড়ির মালিক পলাতক। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করে ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ।

বীরভূমের খয়রাশোলের কাকরতলা থানার বঢ়ড়া গ্রাম। ঘড়ির কাটায় তখন বেলা দুটো। শুরু হয়েছে তুমুল বৃষ্টি। তখনই প্রবল বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল চারিদিক। আগে থেকেই ওই বাড়িটি ঘিরে রেখেছিল পুলিশ। কারণ তাদের কাছে আগে থেকেই খবর ছিল ওই বাড়িটিতে বিপুল পরিমাণ বোমা ও বিস্ফোরক মজুত আছে। পুলিশের আগমনের খবর পেয়ে আগে থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিল বাড়ির মালিক ও পরিবার।

বিস্ফোরণের ফলে ইটের পাকা দেওয়াল ও অ্যাসবেসটাসের ছাদ দেওয়া বাড়িটি সম্পূর্ণ ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। জানা গিয়েছে, ওই বাড়ির মালিক হলেন এলাকার কুখ্যাত দুষ্কৃতী শেখ মহিবুল। তিনি আজফার ওরফে শেখ কালোর গ্যাংয়ের সদস্য। সম্প্রতি সে সংশোধনাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছিল।  খয়রাশোল তৃণমূল পার্টি অফিসে বিস্ফোরণের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে এবং তার নিজের গ্রাম বড়রাতে শেখ কালোর বাড়িতে বোমাবাজি ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় সে যুক্ত রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে।বারবার কেন একই এলাকায় বিস্ফোরণ? তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে৷ ঝাড়খন্ড সীমান্ত লাগোয়া খয়রাশোল এলাকাটি বরাবরই দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য। বেআইনি মাদক কারবার থেকে এলাকায় রাজনৈতিক ক্ষমতা দখল, এই সবই নিয়ন্ত্রণ করতে বোমা বারুদ বিস্ফোরক ও আগ্নেয়াস্ত্র মজুত রাখত দুষ্কৃতীরা।

সম্প্রতি পুলিশের পক্ষ থেকে জেলা জুড়ে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু হয়। উদ্ধার হয় প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা। কিন্তু তাতেও দুষ্কৃতীদের বাড়বাড়ন্ত ঠেকানো যাচ্ছে না খয়রাশোলের এলাকায়। এদিনের বিস্ফোরণের ঘটনা তারই প্রমাণ। জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, “বোমা ও বিস্ফোরক মজুত রয়েছে, সেই খবর পেয়ে পুলিশ আগে থেকেই বাড়িটি ঘিরে রেখেছিল। তারমধ্যেই ঘটল বিস্ফোরণ। অভিযুক্ত পলাতক তার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here