kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: বুধবার সারারাত নিখোঁজ থাকার পর আজ বৃহস্পতিবার সকালে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর দেহ ভেসে উঠল পাশের পাড়ার একটি পুকুরে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বি গার্ডেন থানা এলাকার দক্ষিণ বাকসাড়া এলাকায়। মৃত ওই ছাত্রীর নাম প্রেয়শ্রী ঘোষ(১৪)। বাড়ি সাঁতরাগাছি থানা এলাকার দক্ষিণ পালপাড়ায়। সে পড়ত সুরেন্দ্রনাথ গার্লস স্কুলে। তার মাধ্যমিক পরীক্ষায় বসার কথা ছিল এবছর। ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার সন্ধ্যার সময় সে বন্ধুদের সঙ্গে বাড়ির বাইরে বেরিয়েছিল। এরপর বাড়ি ফিরে খাওয়াদাওয়ার পর দোতলার ঘরে শুতে চলে যায়। এরপর কোনও পরিচিত বন্ধু বা বন্ধুদের ফোন পেয়ে সে রাতেই কাউকে কিছু না জানিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এরপর থেকেই সে নিখোঁজ ছিল।

এদিকে, পুকুরে ছাত্রীর দেহ ভাসছে এই খবর পেয়ে বি গার্ডেন থানার পুলিশ এসে সকালে দেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠায়। পরিবারের দাবি, এই ঘটনায় তার পাড়ার এবং স্কুলের কয়েকজন বন্ধুর যোগ রয়েছে। দু’জন ঘনিষ্ঠ বন্ধুর নাম পরিবার সূত্রে পুলিশকে জানানো হয়েছে। পরিবারের তরফে থানাতেও অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে ছাত্রীর মোবাইল ফোন পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ। প্রেমঘটিত কোনও কারণে এমন ঘটতে পারে কিনা তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। পুলিশ বন্ধুদের বিষয়েও জানার চেষ্টা করছে। অত রাতে কার ফোন পেয়ে সে ঘর থেকে বেরিয়ে গেল, কীভাবেই বা মৃত্যু হল- এই রহস্যের কিনারা করতে তদন্ত শুরু হয়েছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে মৃত ছাত্রীর বাবা অশোক ঘোষ বলেন, কাল তিনজনে রাতে একসঙ্গে খেয়েছি। তার আগে বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে বেরিয়েছিল। এরপর খেয়ে দোতলায় শুতে চলে যায়। রাত প্রায় ১২টা নাগাদ দেখেন বাথরুমের দরজা খোলা, মেয়ের চটি নেই। বাইরে বেরিয়ে দেখি কেউ কোথাও নেই। এরপর সকালে শুনি এই ঘটনার কথা। মেয়েকে অত্যাচার করে মেরে ফেলা হয়েছে বলে তাঁর অভিযোগ। মা রূপা ঘোষ জানিয়েছেন,  কোনও বন্ধুর ফোন পেয়ে সে বুধবার রাতেই কাউকে কিছু না জানিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এরপর থেকেই সে নিখোঁজ ছিল। ওই ছাত্রীর জামাইবাবু প্রীতম চক্রবর্তী জানান, এই ঘটনায় তার পাড়ার এবং স্কুলের কয়েকজন বন্ধুর যোগ থাকতে পারে। যেই দোষী হোক তাদের শাস্তি দাবি করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here