ডেস্ক: আশঙ্কা ছিলই! নির্বাচনী প্রচারে একের পর এক হামলার পর, এবার ভোটের দিনেও রক্তাক্ত হল ভারতের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান। আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণের জেরে পাকিস্তানের বালুচিস্তানের কোয়েটায় মৃত্যু হল ৩১ জনের। ঘটনার জেরে গুরুতর আহত আরও বেশ কয়েকজন। ফলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, বুধবার পাকিস্তানের ১১তম সাধারণ নির্বাচন চলাকালীন সকাল ১১টা নাগাদ কোয়েটায় একটি কেন্দ্রে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটনায় জঙ্গিরা। একটি পুলিশ ভ্যানকে কেন্দ্র করে এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয় বলে জানা যায়। আহতদের চিকিৎসার জন্য তড়িঘড়ি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ভয়াবহ এই ঘটনার জেরে বন্ধ থাকে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া। শুধু তাই নয়, এই বিস্ফোরণের কিচ্ছুক্ষণের পর ফের আত্মঘাতী বিস্ফোরক নিয়ে এক ব্যক্তি পোলিং স্টেশনের মধ্যে ঢোকার চেষ্টা করে এক জঙ্গি যদিও তাকে ঢোকার মুখেই আটকে দেয় নিরাপত্তা রক্ষীরা। বোম স্কোয়াডের চেষ্টায় ওই আত্মঘাতী বিস্ফোরকের শরীর থেকে খুলে নেওয়া হয় বোমা। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে ৮ লক্ষেরও বেশি নিরাপত্তাবাহিনী দিয়ে যেখানে ভোট গ্রহণ চলছে সেখানে কিভাবে এই ভয়াবহ হামলা সংগঠিত হতে পারে।

এদিকে এই ঘটনার তিব্র নিন্দা করেছেন ইমরান খানের দল তেহরিক ই ইনসাফ। ওই দলের নেতা চৌধুরি মহম্মদ সারওয়ার এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করে টুইটে লেখেন, ‘জঙ্গিরা কখনও নির্বাচন স্তব্ধ করতে পারবে না। এ বছর নির্বাচন চলাকালীন জঙ্গি হামলায় যাঁরা নিহত হয়েছেন তাঁদের পরিবারের প্রতি গভীরভাবে সমবেদনা জানাচ্ছি। এবং ঘটনার তীব্র নিন্দা করছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here